এখন আর ৪০ বছর আগের বাংলাদেশ নেই: জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :: পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি বলেছেন,বাংলাদেশ এখন বিশ্বদরবারে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। বাংলাদেশ বদলে গেছে এখন আর ৪০ বছর আগের বাংলাদেশ নেই। আমাদের বাপ-দাদারা যা স্বপ্ন দেখেননি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ গ্রামে গ্রামে স্বাস্থ্যসেবা শিক্ষা, যোগাযোগসহ সার্বিকক্ষেত্রে অসামান্য অবদান অর্জন করে স্বপ্নগুলোকে বাস্তবে পরিণত করেছি । আর তা সম্ভব হয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের কারনে।

শুক্রবার দুপুরে জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের মজিদপুর গ্রামের জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের ১৯তম বৃত্তি বিতরণী উপলক্ষ্যে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ১ কোটির বেশী প্রবাসী দেশের অর্থনীতিতে বিশেষ অবদান রাখছেন। আমরা বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ সবাই মিলে পরিশ্রম করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আমরা বিশ্বাস করি পরিশ্রমের বিকল্প নেই। পরিশ্রম করলে ফল পাওয়া যায়। তিনি বলেন, আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি সেদিন আর বেশী দুরে নয় বাংলাদেশের আজকের প্রজন্ম লন্ডনের চেয়েও বেশী সুযোগ সুবিধা পাবে। মন্ত্রী বলেন,স্বাধীনতা সংগ্রামে যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা বিশেষ অবদান রেখেছেন এবার দেশের অগ্রগতিতেও অবদান রাখছেন।তাই আমরা প্রবাসীদের গুত্বত্ব দিয়ে তাদের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করেতে কাজ করছি। তিনি যুক্তরাজ্য প্রবাসী জগন্নাথপুরবাসীকে ১৯ বছর ধরে বৃত্তি বিতরন করে যাওয়ায় ধন্যবাদ জানান।

ট্রাস্টের চেয়ারম্যান এম এ নুর এর সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক হাসনাত আহমদ চুনু ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের যৌথ পরিচালনায় এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সিদ্দিক আহমদ, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান।

সভায় স্বাগত বক্তব্য দেন জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মহিব উদ্দিন চৌধুরী। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন পাটলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল হক, কলকলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হাশিম, সিনিয়ন ট্রাষ্টি নুরুল হক লালা, আব্দুল মুকিত চুন্নু, ড, ছানাওর চৌধুরী, ট্রাষ্টের ট্রেজারার আব্দুল আলিম, সাবেক ট্রেজারার আব্দুস শহিদ, সাজ্জাদুর রহমান, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি আতাউর রহমান, জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বদরুল ইসলাম, জগন্নাথপুর প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক সানোয়ার হাসান সুনু প্রমুখ।

সভায় মেধাবী দরিদ্র ও উচ্চ শিক্ষা ক্যাটাগরিতে ৫ শতাধিক শিক্ষার্থীর মধ্যে ২৫ লাখ টাকার বৃত্তি বিতরণ করা হয়।

এসময় স্থানীয় সরকার সুনামগঞ্জের উপ পরিচালক এমরান হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান, জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম, জগন্নাথপুর-ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাষ্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আব্দুল আহাদ, জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু, জগন্নাথপুর প্রেসক্লাব সভাপতি শংকর রায়, ট্রাষ্টি তারা মিয়া, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি কামাল উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি সাফরোজ ইসলামসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
জগন্নাথপুর ব্রিটিশ বাংলা এডুকেশন ট্রাস্টের সাধারণ সম্পাদক হাসনাত আহমদ বলেন, ১৯ বছরে আমরা ১৯ হাজার শিক্ষার্থীদেরকে বৃত্তি দিয়ে উৎসাহ দিয়েছি। আগামীতে এ ধারা অব্যাহত থাকবে এতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন তিনি।

ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক মহিব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, আমরা বৃত্তি বিতরনের পাশাপাশি জগন্নাথপুরে একটি শিক্ষা গবেষনাকেন্দ্র তৈরি করছে। ইতিমধ্যে সরকারী অর্থায়নে এক কোটি ২৫ লাখ টাকা ব্যয়ে গবেষণা কেন্দ্রের কাজ শুরু হয়েছে। আগামী বছর থেকে এ গবেষনাকেন্দ্রের মাধ্যমে শিক্ষার মানোন্নয়নে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ কেন্দ্র সমৃদ্ধপাঠাগারের কাজ শুরু হবে।

ট্রাস্টের সভাপতি এম এ নুর বলেন, জগন্নাথপুরকে নিয়ে আমরা স্বপ্নদেখি।এই স্বপ্নের বাস্তবায়নে হিসেবে এই ট্রাস্ট কাজ করছে। আমরা যারা প্রবাসে থাকি দেশের জন্য আমাদের মন সবসময় কাঁদে তাই মাতৃভুমির টানে বার বার ছুঁটে আসি।

Sharing is caring!

Loading...
Open