বিয়ানীবাজারে দুই পরিবারের সদস্যদের পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টা!


সুরমা টাইমস ডেস্ক ঃঃ বিয়ানীবাজারে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে নাশকতা চালিয়ে দুই চাচাসহ তাঁদের পরিবারের সদস্যদের পুড়িয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে জুবায়ের আহমদ (৩৫) নামের এক যুবকের বিরুদ্ধে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত পৌনে ২টায় বিয়ানীবাজার পৌরসভার উত্তর শ্রীধরায় এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত জুবায়ের একই গ্রামের বিলাল আহমদের ছেলে।

ঘটনার শিকার পরিবারের সদস্যরা জানান, রাতে পৌনে ২টার দিকে ঘরের ভেতরে আগুন দেখে চিৎকার দেন সেলিম মাহমুদ। ঘর থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করতে গিয়ে তিনি দেখেন দরজা বাইরে থেকে আটকানো। তিনি আগুন থেকে বাঁচতে কম্বল, লেপ ও তোষক আগুনের ওপর দিয়ে কয়েকবার চেষ্টার পর দরজা খুলে বেরিয়ে আসেন। তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে পরিবারের সদস্যদের উদ্ধার করেন এবং আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। বিয়ানীবাজার থানার টহল পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ লিটার পেট্রল ভর্তি একটি প্লাস্টিকের বোতল এবং একটি খালি বোতল উদ্ধার করেন। এ সময় ঘরের দরজায় দেওয়া ছয়টি তালার পাঁচটি পুলিশ আলামত হিবেবে জব্দ করে।
আগুনে আহত নাজিম মাহমুদ বলেন, জুবায়ের মাদ্রাসায় পড়াশোনা করেছে। এখন কী করে আমরা জানি না।

বছরের অর্ধেক সময় বাড়ির বাইরে থাকে। তিনি বলেন, রাত ২টার দিকে ভাইয়ের (সেলিম মাহমুদ) চিৎকারে ঘুম থেকে উঠে দেখি ঘরের ভেতর আগুন। বউ-বাচ্চাদের নিয়ে অনেক চেষ্টায় এবং প্রতিবেশীদের সহায়তায় বেরিয়ে আসি। নাশকতার এ ঘটনায় বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করবেন বলে জানান সেলিম মাহমুদ।

সরেজমিনে দেখা যায়, ঘরের পাশাপাশি দুইটি দরজা আগুনে ঝলসে গেছে। বাইরে ছড়িয়ে রয়েছে আগুনে পুড়ে যাওয়া কম্বল, লেপ ও তোষকসহ ব্যবহৃত জিনিষপত্র। এ ঘটনায় পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জুবায়েরের চাচাতো ভাই তামিম আহমদ বলেন, বেশ কিছু দিন ধরে আমাদের আগুন দিয়ে পুড়িয়ে মারার ভয় দেখাতেন জুবায়ের ভাই। বিষয়টি আমরা গুরুত্ব দেইনি। অথচ বাস্তবে সে পরিকল্পনা করেই আমাদের হত্যার চেষ্টা করেছে।

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অবনী শংকর কর বলেন, পারিবারিক বিরোধ থেকে আগুন লাগানো হতে পারে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ পেট্রল, বেশ কয়েকটি তালা উদ্ধার করেছে, পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক। কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। আমাদের মনে হয়েছে এটি পরিকল্পিত নাশকতা। থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়নি। অভিযোগ পেলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open