‘মন্দিরের জায়গা দখল করতে আসলে হাত পা ভেঙ্গে পুলিশে দিবেন’

মাধবপুর প্রতিনিধি:: বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী বলেছেন, “দেবোত্তর সম্পত্তি ও মন্দিরের জায়গা দখলের চেষ্টা করা হলে তাদের হাত, পা ভেঙ্গে পুলিশে দিবেন। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। মন্দিরের জায়গা রক্ষা করা সকলের দায়িত্ব। সরকারি সম্পত্তি দখল করা একটা কালচার হয়ে গেছে। এই কালচার বন্ধ করতে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।”

শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে মাধবপুর উপজেলার শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবতার আখড়ার নবনির্মিত ভক্ত নিবাস উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

আখড়া পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক হরিষ চন্দ্র দেবের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মল্লিকা রানী দে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান, ফারুক পাঠান, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা এহতেশামুল বর চৌধুরী লিপু, হিন্দু মহাজোটের আহ্বায়ক মনোজ মোদক, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শ্রীধাম দাশ গুপ্ত প্রমুখ।

মন্ত্রী আরো বলেন, “এলাকার জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া সরকারের দায়িত্ব। মানুষ যখন নিরাপদে থাকতে পারবে, রাতে দরজা খোলে শান্তিতে ঘুমাতে পারে তখনই মানুষ বুজতে পারবে মন্ত্রী থাকতে কাজে লেগেছে।”

এ সময় উপস্থিত জনগণের উদ্দেশ্য বলেন, “কোন পরিধির বিষয়ে পুলিশ কে বলতে না পারলে আমাকে বলবেন। আমি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।”বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী এডভোকেট মাহবুব আলী বলেছেন, “দেবোত্তর সম্পত্তি ও মন্দিরের জায়গা দখলের চেষ্টা করা হলে তাদের হাত, পা ভেঙ্গে পুলিশে দিবেন। বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রতির দেশ। মন্দিরের জায়গা রক্ষা করা সকলের দায়িত্ব। সরকারি সম্পত্তি দখল করা একটা কালচার হয়ে গেছে। এই কালচার বন্ধ করতে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।”

শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) সকালে মাধবপুর উপজেলার শ্রী শ্রী জগন্নাথ দেবতার আখড়ার নবনির্মিত ভক্ত নিবাস উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

আখড়া পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক হরিষ চন্দ্র দেবের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী সভায় বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মল্লিকা রানী দে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান, ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুর রহমান, ফারুক পাঠান, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক তাজুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা এহতেশামুল বর চৌধুরী লিপু, হিন্দু মহাজোটের আহ্বায়ক মনোজ মোদক, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান শ্রীধাম দাশ গুপ্ত প্রমুখ।

মন্ত্রী আরো বলেন, “এলাকার জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেওয়া সরকারের দায়িত্ব। মানুষ যখন নিরাপদে থাকতে পারবে, রাতে দরজা খোলে শান্তিতে ঘুমাতে পারে তখনই মানুষ বুজতে পারবে মন্ত্রী থাকতে কাজে লেগেছে।”

এ সময় উপস্থিত জনগণের উদ্দেশ্য বলেন, “কোন পরিধির বিষয়ে পুলিশ কে বলতে না পারলে আমাকে বলবেন। আমি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিব।”

Sharing is caring!

Loading...
Open