যেদিকে চোখ পড়বে সেদিকে ধুলোর তান্ডব ধুলোর রাজ্যে অসহায় কোম্পানীগঞ্জ

কোম্পানীগঞ্জ প্রতিনিধি :: এ যেন ধুলোর দেশ, সড়কের যেদিকে চোখ পড়বে সেদিকে ধুলোর তান্ডব ।

কোম্পানীগঞ্জ থেকে যারা সিলেট শহরে যাতায়াত করেন রুপচর্চার জন্য আলাদা কোনো কসমেটিক্স সামগ্রী কিনে গায়ে কিংবা মুখে মাখতে হবেনা।এমনিতেই আপনার মুখমণ্ডলসহ সমস্ত শরীরে মেকাপ হয়ে যাবে।তবে সেটি ধুলোর মেকাপ।

ফলে এই সড়কে যারা চলাচল করেন তারা মাস্ক, চাদর ও মুখ ঢাকার কাপড় ব্যবহার করে থাকেন। এই সড়ক দিয়েই ভারত থেকে চুনাপাথর আমদানি রপ্তানি বানিজ্যে দেশের মোটা অংকের একটা রাজস্ব পেয়ে থাকে বাংলাদেশ সরকার।
ভারত থেকে বাংলাদেশের ভিতর ১০ নং সাইটে অপরিকল্পিতভাবে গড়ে উঠা মিনি ক্রাশার স্থানীয়ভাবে যেটি টমটম নামে পরিচিত ।
এই টমটম দিয়ে পানির ব্যবহার ছাড়াই পাথর ভাঙ্গানো হয়, যার কারনে বাতাসের সাথে উড়ে মানুষের শরীরের স্পর্শকাতর স্থানে প্রবেশ করে বিভিন্ন ধরনের রোগজীবাণু হচ্ছে।

বর্তমানে সিলেট ভোলাগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়কের নির্মাণ কাজ চলমান থাকার কারনে প্রতিনিয়ত জ্যাম লেগেই থাকে তার মধ্যে অন্য আরেক ভোগান্তি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে, আর সেটা হচ্ছে ধুলো।
তেলিখাল থেকে শুরু করে বর্ণি পর্যন্ত শুধু ধুলোর রাজত্ব। সড়কের নির্মাণ কাজ শেষ না হওয়ার কারনে এই জায়গা থেকে সবচেয়ে বেশী ধুলো উড়তে থাকে।

যানবাহন চলাচলের সময় সুর্যের আলোতেও ধুলোয় কুয়াশাচ্ছন্ন অন্ধকার থাকে এই মহাসড়ক। ফলে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে জনজীবন।বিশেষ করে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থী।বাতাসের সাথে উড়ে গিয়ে রাস্তার পার্শ্বস্থ বসতবাড়িসহ বিভিন্ন অফিসও হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্ত।বিশেষজ্ঞদের ধারণা এই ধুলো মানবজীবনের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরুপ।
রাস্তায় পানি দেওয়ার জন্য সড়ক নির্মাণ কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান স্প্রেকট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স নিয়মিত পানি ব্যবহার করার কথা থাকলেও সেটি তারা করছেনা বলে দাবী এলাকাবাসীর।

ভোলাগঞ্জে দীর্ঘদিন ধরে পাথর ব্যবসা করেন দুলাল আহমদ তিনি বলেন, এলাকায় ব্যবসা করতে এসেছি কিন্তু ধুলোর কারনে সবসময় অসুস্থ হয়ে পরি।
পর্যটন এলাকা ভোলাগঞ্জে বেড়াতে আসা পর্যটকদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, এই প্রথম ভোলাগঞ্জে বেড়াতে এসে এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে আমরা মুগ্ধ ও বিমোহিত। তবে ডিজিটাল সরকারের আমলে এখানে যে ধুলোবালির ছড়াছড়ি তা দেখে মনে খুবই কষ্ট লাগে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের লীলা ভূমি খনিজ সম্পদে ভরপুর এই ভোলাগঞ্জে প্রতিদিনই অগণিত পর্যটক আসলেও রাস্তাঘাট ও পরিবেশের দিকে সরকারের কোন সু নজর নেই দেখে সত্যি মনে খুব কষ্ট পেয়েছি।

এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা প্রণয় কান্তি বলেন, ধুলো বালি জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। পাথর ভাঙ্গার ডাস্ট বা ধুলোবালি নাক মুখ দিয়ে মানুষের দেহে প্রবেশ করে প্রথমে শ্বাসকষ্ট, কাশি, এলার্জি, ব্রঙ্কাইটিস, এ্যাজমা সহ নানা রোগে আক্রান্ত হতে পারে।

Sharing is caring!

Loading...
Open