ঠান্ডায় জমে যাচ্ছে ইউরোপ-আমেরিকা, গরমে পুড়ছে অস্ট্রেলিয়া

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: ভয়াবহ শীতে জমে যাচ্ছে ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। অপরদিকে অস্ট্রেলিয়া যেন তীব্র গরমে পুড়ে যাচ্ছে। পূর্ব এবং কেন্দ্রীয় ইউরোপে প্রচণ্ড শীতে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে ৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে মেরু অঞ্চল থেকে আসা হিমশীতল ঘূর্ণি বাতাসে ভয়াবহ শীতে কাঁপছে আমেরিকা। সেখানে এখন পর্যন্ত আটজনের মৃত্যু হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে এমন তীব্র শীত সাম্প্রতিক বছরগুলোতে আর দেখা যায়নি। বাতাস এতটাই ঠান্ডা যে, জোরে নিশ্বাস নিতেও নিষেধ করা হচ্ছে। এমনকি বাইরে না বের হতেও পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ভয়াবহ ঠাণ্ডা আর বরফাচ্ছন্ন পরিস্থিতিতে জনজীবন স্থবির হয়ে পড়েছে।
পূর্ব ইউরোপের দেশ ইউক্রেনে তীব্র শীতে কমপক্ষে ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। পোল্যান্ড, রোমানিয়া এবং বুলগেরিয়াতেও বেশ কয়েকজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

সুইডেনের আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, সু্ইডেনের উত্তরাঞ্চলের তাপমাত্রা নেমে হয়েছে মাইনাস ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা চলতি মাসে সর্বোচ্চ শীতের রেকর্ড।স্কটল্যান্ডে তাপমাত্রার রেকর্ড হয়েছে মাইনাস ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ব্রিটেনের কর্মকর্তারা বলছেন, এই শীতের সবচেয়ে শীতল রাত গেছে চলতি মাসে। অপরদিকে, কানাডার টরন্টোতে বর্তমানে তাপমাত্রা কমে দাঁড়িয়েছে মাইনাস ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশই যখন প্রচণ্ড শীতে কেঁপে অস্থির তখন বছরের শুরুতেই গরমের দাপটে ঘেমে একাকার অস্ট্রেলিয়ার মানুষ। মনে হচ্ছে এ যেন আরেক গ্রীষ্মকাল।

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, চলতি বছরের জানুয়ারি মাস কেবলমাত্র সবচেয়ে উষ্ণ জানুয়ারিই নয় বরং অস্ট্রেলিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে গরম মাসও। গত বছরের ডিসেম্বরেও অস্ট্রেলিয়াতে তীব্র গরম লক্ষ্য করা গেছে। গত বছর অস্ট্রেলিয়াতে তৃতীয়বারের মতো সর্বোচ্চ গরম পড়েছিল।

গত মাসে অস্ট্রেলিয়াতে গড় তাপমাত্রা ছিল ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। মাসের মাঝামাঝিতে তাপমাত্রা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Sharing is caring!

Loading...
Open