নগরীর সাদারপাড়া এলাকায় সিসিকের উদ্যোগে বৈকালিক টিকাদান কর্মসূচি

সুরমা টাইমস ডেস্ক ::সিলেট সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে এবার শুরু করা হয়েছে বৈকালিক সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি (ইভিনিং ইপিআই) কর্মসূচি। এই প্রথম দেশে ইভিনিং ইপিআই কর্মসূচি চালু করা হলো। বস্তি এলাকার শিশুদের কথা বিবেচনা করেই সিসিক এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানিয়েছেন সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. জাহিদুল ইসলাম।
গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা আড়াইটায় সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাদারপাড়া এলাকায় এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

সিসিক সূত্র জানায়, ছাতা দিয়ে বস্তি এলাকায় প্রতিদিন চারজন কর্মী এই কার্যক্রম চালিয়ে যাবেন। ২৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে ইপিআই লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে ১১ হাজার ৭৪২ শিশু।

সিসিকের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মো. জাহিদুল ইসলাম বলেন, সিসিক এলাকায় আগে থেকেই মর্নিং ইপিআই সম্প্রসারিত টিকাদান কর্মসূচি চালু রয়েছে। কিন্তু বস্তি এলাকার মায়েরা কর্মজীবী হওয়াতে দিনেরবেলা বাইরে থাকেন। ফলে অনেক শিশু টিকাদান থেকে বঞ্চিত থেকে যায়। তাই কর্মজীবী নারীদের সুবিধার্থে যাচাই-বাছাই করে শিশুদের টিকাদানের আওতায় আনা হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশের মধ্যে প্রথমবারের মতো সান্ধ্যকালীন ইপিআই চালু করা হলো। নগরের ১৪টি বস্তিতে শুরু হওয়া এই কর্মসূচি চলবে। ওয়ার্ডগুলোতে ২৮ দিন পর পর আগামী এক বছর ইপিআই কার্যক্রম চলবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open