বিমানে যৌন নিপীড়ন: যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী ভারতীয়কে ৯ বছরের কারাদন্ড

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: উড়োজাহাজে পাশের আসনে বসা এক নারীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে দোষীসাব্যস্ত এক ভারতীয়কে ৯ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত।

বৃহস্পতিবার ডেট্রয়েটের ফেডারেল কোর্ট এ রায় দেয় বলে জানায় বিবিসি। কারাদণ্ডের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর প্রভু রামামূর্তিকে (৩৪) ভারতে বিতাড়ণ করার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।।

ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের প্রযুক্তিবিদ প্রভু ২০১৫ সালে এইচ-১বি ভিসায় যুক্তরাষ্ট্র যান। উচ্চদক্ষতা সম্পন্ন ব্যক্তিদের এইচ-১বি ভিসা দেয় যুক্তরাষ্ট্র।

গত জানুয়ারিতে এক নারী প্রভুর বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ আনেন।

ওই নারীর অভিযোগ, উড়োজাহাজে তিনি ঘুমিয়ে থাকা অবস্থায় প্রভু তার শরীরে হাত দেয়। ঘুম থেকে উঠে তিনি নিজের শার্ট ও ট্রাউজারের বোতাম খোলা এবং প্রভুর হাত তার ট্রাউজারে দেখতে পান। পাশের আসনে প্রভুর স্ত্রীও ছিলেন।

পাঁচদিনের শুনানি শেষে গত অগাস্টে আদালত প্রভুকে দোষীসাব্যস্ত করে।

যদিও প্রভু তার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছিলেন, তিনিও ওই সময় ঘুমিয়ে ছিলেন।

বিবিসি জানায়, স্প্রিট এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজটি অবতরণের আগে দিয়ে ওই নারী ক্রদের কাছে যৌন নিপীড়নের শিকার হওয়ার অভিযোগ করেন।

প্রভুর স্ত্রীর দাবি, অভিযোগকারী নারী তার স্বামীর হাঁটুর উপর ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। ক্রুদের কাছে ওই নারীকে অন্য কোথায় বসানোর অনুরোধ করেছিলেন বলেও দাবি করেন তিনি।

যদিও তদন্তের সময় ক্রুরা বলেন, প্রভু বা তার স্ত্রী নয় বরং অভিযোগকারী নারী তাদের কাছে তার আসন পরিবর্তনের অনুরোধ করেছিলেন।

“তিনি কাঁদতে কাঁদতে আমাদের কাছে আসেন। তখন তার শার্ট ও ট্রাউজারের বোতাম খোলা ছিল। আমরা পরে তাকে উড়োজাহাজের পেছন দিকের একটি আসনে বসার ব্যবস্থা করি।”

আদালতে উপস্থাপণ করা অন্যান্য প্রমাণেও প্রভুকে ঘুমন্ত ওই নারীর শরীরে হাত দিতে দেখা যায়। যৌন নিপীড়নের সময় ওই নারী ঘুম ভেঙ্গে যায় এবং তিনি চিৎকার করে ক্রুদের সাহায্য চান বলে জানায় এনডিটিভি।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, প্রসিকিউশন প্রভুর ১১ বছরের কারাদণ্ড দাবি করেছিল।

রায়ে ডিসট্রিক্ট জজ টেরেন্স বার্গ বলেন, “এ ঘটনা খুবই গুরুতর অপরাধ। নয় বছরের কারাদণ্ড এ অপরাধের জন্য যথেষ্ট।”

Sharing is caring!

Loading...
Open