সিলেট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলো ঐক্যফ্রন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক:: সিলেট থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। আজ বুধবার সন্ধ্যায় ড.কামাল হোসেনসহ ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা হযরত শাহজালাল (র.) ও হযরত শাহপরান (র.) এর মাজার জিয়ারতের মধ্য নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন।

শাহজালাল মাজার জিয়ারত শেষে গণমাধ্যমের সাথে আলাপকালে ড. কামাল হোসেন বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচন হলো স্বাধীনতার একটি অংশ। সুষ্ঠ নির্বাচন না হলে দেশের মালিক যে জনগণ তাদের মালিকানা থাকে না। জনগণের মালিকানা না থাকলে আমাদের স্বাধীনতা আমরা হারাবো।

তিনি জনগনের উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে তখন কারো অসৎ উদ্দেশ্য থাকলেও তারা সফল হবে না। তাই আপনারা ঐক্যবদ্ধ থাকুন। আমাদের ইতিহাস দেখেন, জনগন যখনই ঐক্যবদ্ধ হয়েছে তখনই তাদের অধিকার আদায় করতে পেরেছে। তাই আপনারা ৩০ তারিখ ভোরে নামাজের পরেই ভোটকেন্দ্রে হাজির হবেন। নিজের ভোট অবশ্যই দিবেন। এরপর ভোটকেন্দ্র পাহাড়া দিবেন। যাতে কেউ কোনো দুই নম্বরি করতে করতে না পারে।

ড. কামাল বলেন, জনগনের মালিকানা নিশ্চিত করতেই আমরা ঐক্যের ডাক দিয়েছি। এই অল্প সময়েই জনগনের কাছ থেকে আমরা অসাধরণ সাড়া পাচ্ছি। সব জায়গা থেকেই জনগন সাড়া দিচ্ছে, আপনারাও তা লক্ষ্য করছেন। মানুষ জানে যে তাদের মালিকানা, তারা সেই মালিকানা রক্ষার জন্য ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। মানুষ একটি সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য আজ ঐক্যবদ্ধ।

তিনি বলেন, আমরা যে জায়গায় যাচ্ছি, সেখানেই জনগনকে একটি কথাই বলছি, আপনারা দেশের মালিক, মালিকানা রক্ষা করেন। ভোট দিতে না পারলে আপনারা সেই মালিকানা হারাবেন। আজকে ১৮ কোটি মানুষকে সোচ্ছ্বার হতে হবে। অবাদ সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য সুষ্ঠ পরিবেশ আদায় করে নিতে হবে।

ড. কামাল হোসেন বলেন, সারাদেশে আমাদের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে। মিথ্যে মামলায় হয়রানি করছে। তবু আমরা শেষমূহূর্ত পর্যন্ত লড়ে যাবো। নির্বাচন থেকে কোনো অবস্থাতেই সড়ে দাঁড়াবো না।

সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজ হযরত শাহাজাল (র) এর মাজার জিয়ারত করে আমরা প্রচারণা শুরু করলাম। তাঁর কাছে দোয়া নিতে এসেছি। যাতে ১৮ কোটি মানুষের উপর তাঁর রহমত বর্ষিত হয়। যাতে ১ কোটি ভোটার নির্বিঘ্নে, নির্ভয়ে ভোট দিয়ে যোগ্য প্রতিনিধি নির্বাচন করতে পারে।

ড. কামালের সিলেট আসার কথা ছিলো দুপুর ২টায়। কিন্তু বিমানের ফ্লাইট বিলম্বের কারণে বিকেল সাড়ে ৪টায় সিলেট এসে পৌঁছান ড. কামাল হোসেন। সন্ধ্যা পৌনে পাঁচটার দিকে শাহজালাল মাজারে আসেন তিনি। এসময় তাঁর সাথে ছিলেন জাসদ নেতা আ. স. রব, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী ও ঐক্যফ্রন্ট নেতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা সিলেট আসার খবরে দুপুর থেকেই শাহজালাল মাজার এলাকায় উপস্থিত হন বিএনপিসহ শরীক দলগুলোর বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী। এসময় ধানের শীষের নামে মূর্হমূহ স্লোগান দিতে থাকেন তাঁরা।

হযরত শাহজালের মাজার জিয়ারতের পর হযর শাহপরানের মাজার জিয়ারত করেন ড. কামালসহ ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ।

সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম জানান, দুই মাজার জিয়ারতের পর রাতেই বিমানযোগে ঢাকায় ফিরে যাবেন ড. কামাল হোসেন। আর নজরুল ইসলাম খানসহ অন্য নেতারা সিলেটের দক্ষিণ সুরমা ও জৈন্তাপুর উপজেলায় দুটি পথসভায় অংশ নেবেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open