ছাত্রলীগ, যুবলীগের শতাধিক নেতা-কর্মীও বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন


সুরমা টাইমস ডেস্ক :: ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ফারুক আলম সরকার বিএনপির মনোনয়ন ফরম কিনেছেন। তার সঙ্গে গাইবান্ধা জেলা ছাত্রলীগ, যুবলীগের শতাধিক নেতা-কর্মীও বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে ফারুক আলম সরকার গাইবান্ধা ৫ (সাঘাটা-ফুলছড়ি) আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন কিনেছেন। ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী এ আসনের সাংসদ। তিনি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গাইবান্ধা-৫ আসন থেকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন।

বুধবার রাতে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন।

ফারুক আলম সরকারের বিএনপিতে যোগদান উপলক্ষে বুধবার রাতে অনুষ্ঠানের মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেন, সরকার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র করছে। নির্বাচন বানচাল করার জন্য আজ বিএনপির কার্যালয়ের সামনে শান্তিপূর্ণ নেতা-কর্মীদের ওপর পুলিশ হামলা চালিয়েছে। এসব সহিংসতা করে সরকার নির্বাচন বানচাল করতে চায়।
ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমি স্পষ্টভাবে বলে দিতে চাই, আমরা কোনোভাবেই নির্বাচন বানচাল করতে দেব না। আমরা মনে করি, নির্বাচনের মাধ্যমেই এই সরকারের অপসারণ হবে, নির্বাচনই সরকার পরিবর্তনের একমাত্র পথ।

যোগদান অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মইন প্রধান। অনুষ্ঠানে বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আসাদুল হাবিব দুলু, গাইবান্ধা জেলা সভাপতি সৈয়দ মইনুল হাসান সাদিক, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুন নবী টুটুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open