চলন্ত বাস থেকে বাবাকে ফেলে মেয়েকে অপহরণ

সুরমা টাইমস ডেস্ক ::
ঢাকার উপকণ্ঠে সাভারের আশুলিয়ায় শুক্রবার (৯ নভেম্বর) সন্ধ্যায় চলন্ত বাস থেকে আকবর আলী মণ্ডল (৭০) নামে এক বৃদ্ধকে ফেলে দিয়ে তার মেয়েকে অপহরণ করে দুর্বৃত্তরা। এর কয়েক ঘণ্টা পর রাত ৯টার দিকে স্থানীয় মরাগাং এলাকা থেকে পুলিশ মেয়েটির লাশ উদ্ধার করেছে। তাকেও চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেওয়া হয় বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

পুলিশ জানিয়েছে, নিহতের নাম জরিনা বেগম (৪৫)। তাদের বাড়ি সিরাজগঞ্জের চৌহালী থানার খাসকাউলি গ্রামে।

আকবর আলী জানান, সকালে তারা দুইজন আশুলিয়ার গাজিরচট এলাকায় তার নাতনীর বাসায় বেড়াতে আসেন। সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জে বাড়ি ফিরে যাওয়ার উদ্দেশ্যে আশুলিয়ার ইউনিক থেকে টাঙ্গাইলগামী বাসে উঠেন বাবা ও মেয়ে। তবে বাসটি টাঙ্গাইল না গিয়ে কয়েক ঘণ্টা বিভিন্ন স্থান ঘুরে আবার আশুলিয়ার দিকে চলে আসে। পরে বাসটি আশুলিয়ার মরাগাঙ্গ এলাকায় পৌঁছলে তাকে (আকবর আলী) মারধর করে মোবাইল ফোন ও টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে চলন্ত বাস থেকে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা (যারা যাত্রী সেজে বাসে উঠে)। এদের সঙ্গে বাসের চালক ও সুপারভাইজারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এ সময় আহত অবস্থায় স্থানীয়দের সহযোগিতায় নিহতের বাবা টহল পুলিশকে ঘটনাটি জানালে তারা প্রায় দুই কিলোমিটার সামনে গিয়ে মহাসড়কের পাশ থেকে মেয়ে জরিনা খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে।

তবে আকবর আলী জানাতে পারেননি কেন তারা মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। অবশ্য পুলিশের ধারণা, টাকা-পয়সা ছিনিয়ে নেওয়ার সময় জোরাজুরি ও চিৎকার করার কারণে তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়ে থাকতে পারে। কারণ নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এ ঘটনায় নিহতের মেয়ের স্বামী নুর ইসলাম বাদী হয়ে বাসের চালক ও হেলপারসহ অজ্ঞাতদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

বাস ও ঘটনায় জড়িতদের আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ।

Sharing is caring!

Loading...
Open