কানাইঘাটে ভারতীয় গরু আনতে গিয়ে সুরমা নদীতে এক ব্যাক্তি নিখোঁজ

কানাইঘাট প্রতিনিধি:: কানাইঘাটে অবৈধ ভাবে ভারতীয় গরু নিয়ে আসার সময় সুরমা নদীতে আব্দুর রহমান নামের এক ব্যাক্তি নিখোঁজ রয়েছেন। সে উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপি’র মিকিরপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে। বুধবার সকাল সাড়ে ৬ টায় একই উপজেলার দিঘীরপাড় ইউপি’র দর্পনগর পশ্চিম গ্রামে সরমা নদীতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যাক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় বিজিবি’র চোখ ফাকি দিয়ে প্রায় প্রতিদিন উপজেলার লোভা ও দনা সীমান্তের মধ্য দিয়ে অবৈধভাবে ভারতীয় শতাধিক গরু বাংলাদেশে নিয়ে আসেন মুনাফা লোভী একটি ব্যবসায়ী চক্র। এরই ধারাবাহিকতায় সীমান্ত এলাকায় বুধবার রাতে বিজিবি’র টহল জোরদার থাকার কারনে তারা ভারত থেকে গরু নামাতে পারেনি। এক পর্যায় সুযোগ বুঝে ১নং ইউপি’র সোনারখেওর গ্রামের তাজ উদ্দিন, ইব্রাহীম আলী, আনিসুল হক, সুমন আহমদ, কামাল উদ্দিন, আশিক উদ্দিন ও সেলিম উদ্দিন সহ এই ব্যবসায়ী চক্রের প্রায় শতাধিক গরু ২০ থেকে ২৫ জনের একটি ভাড়ায় কাটা শ্রমিক দল বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। তারা ধাপে ধাপে সীমান্ত পেরিয়ে লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ইউপি’র দীর্ঘ পথ অতিক্রম করার পর স্থানীয় মমতাজগঞ্জ বাজারের পশ্চিমে দর্পনগর পশ্চিম গ্রামের তীর দিয়ে সুরমা নদী পাড়ি দেয়।

এতে ঐ ব্যবসায়ী চক্রের সুমন ও আশিকের ভাড়ায় কাটা শ্রমিক আব্দুর রহমান সুরমা নদীতে নিখোজ হন। নিখোঁজ হওয়ার সময় আব্দুর রহমান কয়েক বার হাত তুলে চিৎকার করলে নদীর তীরে সকালে সবজির বাগানে থাকা স্থানীয় লোকজন ঘটনাটি জানতে পারেন। এর পর থেকে সে নিখোজ রয়েছে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে ব্যবসায়ী সহ এলাকার বিপুল সংখ্যক লোকজন তাকে নদীতে খুজাখুজি করে না পেয়ে সিলেট ফার্য়ার সার্ভিসের ডুবুরী দলকে খবর দেওয়া হয়। পরে কানাইঘাট থানা পুলিশের এসআই সনজিত সহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত ফার্য়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল নিখোজ ব্যাক্তির তল্লাশী চালাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য মজির উদ্দিন।

Sharing is caring!

Loading...
Open