‘সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে জনসচেতনতা শিক্ষার্থীদের প্রচেষ্ঠার মাধ্যমেই সম্ভব’

বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রণালয় কর্তৃক গ্রহীত নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণে মাসব্যাপী গণসচেতনা কর্মসূচির অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করতে সিলেটের জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে বিশেষ প্রাতঃসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন- সিলেটের জেলা প্রশাসক নুমেরী জামান।

কলেজের অধ্যক্ষ লে. কর্নেল মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন, এএফডব্লিউসি, পিএসসি’র সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা আমাদের জাগিয়ে তুলেছে। তাদের আগ্রহ ও ঐকান্তিক ইচ্ছাশক্তি ব্যবহার করে তাদের পিতা-মাতা, আত্মীয়-স্বজন, প্রতিবেশীকে দ্রুত সচেতন করে তুলতে পারে।’ তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, তোমরা বিদ্যালয়ে যখন শেখো তখন শিক্ষকরা তোমাদের শেখান। কিন্তু সড়ক নিরাপদ রাখার জন্য সকলকে সচেতন করার নিয়মগুলো নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণের জন্য প্রণীত লিফলেটে সন্নিবেশ করা হয়েছে। এগুলো নিজেরা অনুসরণ করে এবং সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে পরিবার-পরিজনের কাছে শিক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে সহজেই তোমরা সচেতন করে তুলতে পার। কেননা নিরাপদ সড়ক সকলের জীবন নিরাপদ রাখার একটি অন্যতম নিয়ামক।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে, উন্নত রাষ্ট্র গড়তে, জনজীবনের যাতায়তের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে তোমাদের মাধ্যমে সমগ্র জাতিকে সচেতন করে তুলতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই উদ্যোগ নিয়েছেন। তিনি জালালাবাদ ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে বিশেষ প্রাতঃসমাবেশ আয়োজন করায় সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।’ এসময় তিনি শ্রেণিশিক্ষক ফারুক আহমদ ও শিক্ষার্থীদের হাতে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণ বিষয়ক লিফলেট তুলে দেন।

সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন- সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) তোফায়েল আহমেদ, সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক আবু সাফায়াত মোহাম্মদ শাহেদুল ইসলাম, সদর উপজেলার ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মোছাম্মত খালেদা খাতুন।

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-কলেজের উপাধ্যক্ষ মো. আরিফ সেলিম রেজা ও বাংলাদেশ স্কাউটস সিলেট জেলার সহকারী কমিশনার হিফজুর রহমান খাঁন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মো. এমদাদুল হক সিদ্দিকী ও তাকে সহযোগিতা করেন হারুন-অর-রশিদ, হোসেন মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ সোহেল ও মোহাম্মদ খলীলুর রহমান। অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট’স স্কাউট রাইসা সালসাবিল ও স্কাউট সালওয়া মেহরিন নিরাপদ সড়ক বিষয়ক লিফলেট পাঠ করে শোনান।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে অধ্যক্ষ লে. কর্নেল মোহাম্মদ শাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘জেসিপিএসসির একাডেমিক ও সহপাঠক্রমিক ক্ষেত্রে যেমন নজরকাড়া সাফল্য দেখিয়েছে; তেমনি সরকার ঘোষিত সকল কার্যক্রম আন্তরিকতা ও নিষ্ঠাসহকারে পালন করে চলেছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে যে পরিসংখ্যান পেয়েছি তাতে বিশ হাজারের ওপর বিভিন্ন পর্যায়ের ব্যক্তিদের কাছে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার এই বার্তা পৌঁছেছে।’ তিনি বলেন, ‘জেসিপিএসসির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও জিওসি ১৭ পদাতিক ডিভিশন, এরিয়া কমান্ডার, সিলেট এরিয়া এবং পরিচালনা পর্ষদ সভাপতি ও কমান্ডার ৫২ পদাতিক ব্রিগেড নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতকরণে জনসচেতনা বৃদ্ধির অবহিতকরণ কর্মসূচি বাস্তবায়নে নির্দেশনা নিয়ে যাচ্ছেন।’ তিনি জেলা প্রশাসক, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি), ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে এই আয়োজনে সাড়া দিয়ে শিক্ষার্থীদের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণ জোগানোর জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

সমাবেশ শেষে জেসিপিএসসির প্রধান ফটকের সামনে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনের চালক-যাত্রী ও পথচারীদের মাঝে নিরাপদ সড়ক নিয়ে লিফলেট বিতরণে অংশ নেন অতিথিবৃন্দ।-বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open