সিলেট থেকে ফিরে গেল ‘প্রেম আমার-টু’ ছবির ইউনিট

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: পুলিশের অনুমতি না পেয়ে সিলেট থেকে ঢাকা ফিরে গেছে টিম ‘প্রেম আমার-টু’। গত শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) ভোর থেকে এমসি কলেজে ছবিটির প্রথম দিনের কাজ শুরু হয়। আধাবেলা শুটিং করার পর আর এগুতে পারেননি কলকাতার অন্যতম প্রযোজক-পরিচালক রাজ চক্রবর্তী ও তার দল।

ভারতীয় শিল্পীদের কাছে বাংলাদেশে কাজ করার অনুমতিপত্র না থাকার অভিযোগে ওইদিন দুপুরে শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হয়। নগরীর শাহপরান থানা সূত্র এমনটা নিশ্চিত করে।

যৌথ প্রযোজনায় নির্মিতব্য এই ছবিটির প্রযোজনায় বাংলাদেশের জাজ মাল্টিমিডিয়া ও ভারতের রাজ চক্রবর্তী প্রডাকশনস। এটি পরিচালনা করছেন কলকাতার বিদুলা ভট্টাচার্য।

জানা গেছে, সিলেটে বন্ধ হয়ে যাওয়া শুটিং ফের শুরু করতে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে গেল দুদিন (শুক্র-শনি) ধরে আলোচনা করেও কোনও সুরাহা হয়নি।

শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তার হোসেন জানান, কোনও ধরনের নিয়মনীতি না মেনে ‘প্রেম আমার-টু’ নামের একটি ভারতীয় ছবি সিলেটের ঐতিহ্যবাহী এমসি কলেজে শুটিং চলছিলো। এমন খবর পেয়ে শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পুলিশ তা বন্ধ করে দেয়। ছবিতে ভারতীয় কলাকুশলীদের বাংলাদেশে কাজ করার ছাড়পত্র পাওয়া যায়নি। এছাড়াও তারা এলসি ইস্যু করেননি। তাই শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে এই শুটিংয়ের জন্য গত এক সপ্তাহ সিলেটে অবস্থান করছিলেন কলকাতা থেকে আগত রাজ চক্রবর্তী ও তার দল। শুটিং করার কথা ছিল টানা এক সপ্তাহ।

যৌথ প্রযোজনার আলোচিত এই ছবিটির বাংলাদেশ অংশের প্রযোজক আবদুল আজিজ কাজের অনুমতিপত্র না থাকলে কোথাও শুটিং করার সুযোগ রয়েছে কি. এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘এটা অনুমতির বিষয় না। সবই আছে আমাদের কাছে। ওয়ার্ক-পারমিট না থাকলে ভিসা পায় কিভাবে? অনুমতি ছাড়া এত বড় আয়োজনে আমরা যাবো কেন?’

প্রসঙ্গত, সিক্যুয়েল হলেও ‘প্রেম আমার টু’ ছবির গল্পে থাকছে ভিন্নতা। গত কয়েক মাস ধরে ছবির প্রি-প্রোডাকশন নিয়ে কাজ করেছে পুরো টিম। ছবির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা যাবে আদৃত, পূজা চেরী ও সৌরভ দাসকে। বাংলাদেশ থেকে পূজা চেরী ছাড়াও নাদের চৌধুরী, চম্পাসহ অনেকের এ ছবিতে কাজ করার কথা রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open