শ্রুতি সিলেটের নজরুল স্মরণ

‘আমি চির বিদ্রোহী বীর বিশ্ব ছাড়ায়ে উঠিয়াছি একা চির উন্নত শির!’ ‘বিদ্র্রোহী’ কবিতার সেই অমর পঙ্ক্তিতে বাঙালি এবং নিজের আত্মপরিচয়কে এভাবেই তুলে ধরেছিলেন বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

মানবতা, প্রেম, দ্রোহ, চেতনার কবি তিনি। নিজের ক্ষুরধার লেখনীর আঁচড়ে স্থান করে নিয়েছেন বিশ্বসাহিত্যে। গদ্য, পদ্য, উপন্যাস, সঙ্গীত- সব শাখায় তার আগমন ছিল ধূমকেতুর মতো। বাংলা সাহিত্যে তার আগমন প্রসঙ্গে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিজের এক গ্রন্থের উৎসর্গপত্রে লিখেছিলেন ‘আয় চলে আয়রে ধূমকেতু/আঁধারে বাঁধ অগ্নিসেতু, দুর্দিনের এই দুর্গশিরে উড়িয়ে দে তোর বিজয় কেতন।’।জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ৪২ তম মৃত্যুবার্ষিকী ছিল গত ২৭ আগস্ট ২০১৮। ১৩৮৩ বঙ্গাব্দের ১২ ভাদ্র ১৯৭৬ সালে ঢাকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (তৎকালীন পিজি হাসপাতাল) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বলে গিয়েছিলেন ‘মসজিদেরই পাশে আমায় করর দিও ভাই, যেন গোরের থেকে মুয়াজ্জিনের আজান শুনতে পাই’। তার সে ইচ্ছানুযায়ী কবিকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে সমাহিত করা হয়। ১৩০৬ বঙ্গাব্দের ১১ জ্যৈষ্ঠ (১৮৯৯ সালের ২৫ মে) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার আসানসোল মহকুমার চুরুলিয়া গ্রামে কবি নজরুল ইসলামের জন্ম। কবির জীবনকাল ৭৭ বছরের। ১৯৪২ সালে অসুস্থ হয়ে বাকশক্তি হারিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তিনি সৃষ্টিশীল ছিলেন। এ সময়ের মধ্যে কবি শিল্প-সাহিত্যকে যা দিয়েছেন, তা বাংলা তথা বিশ্ব পরিমণ্ডলেই অমূল্য সম্পদ। কবির ডাক নাম ছিল দুখু মিয়া।

কবির প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রুতি সিলেট আয়োজন করে “তবু আমারে দেব না ভুলিতে” শীর্ষক আলোচনা সভা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের এতে অতিথি এবং আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব শামসুল আলম সেলিম। অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্বাগত ব্যক্তব্য রাখেন শ্রুতি সদস্যসচিব সুকান্ত গুপ্ত। কথা কবিতা ও গানে স্মরণ করা হয় দ্রোহের কবি প্রেমের কবি কাজী নজরুল ইসলামকে।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন শ্রুতি সমন্বয়ক সুমন্ত গুপ্ত, সন্দীপ রায়, অজয় চক্রবর্তী, সৃজন দাশ প্রমুখ। কথা কবিতা ও গান পরিবেশন করেন সুস্মিতা অর্পা, তামান্না প্রত্যাশা, রিয়া চক্রবর্তী, চপল কুন্ডু, স্রোতস্বিনী স্নেহা, নিলয় তালুকদার, শান্তা চক্রবর্তী, বাঁধন দাশ, পলক চন্দ, নিশীতা চৌধুরী, রুপম দাশ, অর্পিতা চক্রবর্তী, তায়েবা যুথী প্রমুখ।–বিজ্ঞপ্তি।

Sharing is caring!

Loading...
Open