রাজনগরে প্রশাসন ও চেয়ারম্যানের নাকের ডগায় হচ্ছে বাল্য বিয়ের আয়োজন!

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি::      সারাদেশে যখন বাল্য বিবাহের বিরুদ্ধে কাজ করছে সরকারী ও বে-সরকারী বিভিন্ন সংস্থা। কিন্তু মৌলভীবাজারের রাজনগরে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের নাকের ডগায় বাল্য বিয়ে সম্পূর্ন হতে যাচ্ছে এমন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

খোজ নিয়ে জানা যায়,মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার পাঁচগাঁও ইউনিয়নের শত্রু মদন গ্রামের ইউছুফ মিয়ার মেয়ে লিজা আক্তার স্থানীয় পাঁচগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। জেএসসি সনদ অনুযায়ী লিজার জন্ম তারিখ ০৫ মার্চ,২০০২। কিন্তু স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জাল জন্ম নিবন্ধন বানিয়ে বয়স বাড়িয়ে তার বিবাহ সম্পন্ন করার আয়োজন করা হয়েছে। আগামীকাল তার বিয়ে।

এই বিষয়টি স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান,পাঁচগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে অবগত করা হলেও তারা কোন প্রদক্ষেপ নিচ্ছেন না বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে লিজার বাবা ইউছুফ মিয়া বলেন, আমার মেয়ের বয়স ঠিক আছে, স্কুলে ভুল হয়েছে।

তবে, পাঁচগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাদিকুর রহমান ভূইয়া লিজা আক্তার দশম শ্রেণীর ছাত্রী বলে নিশ্চিত করেন।

স্কুলের সার্টিফিকেট থেকে কিভাবে জন্ম নিবন্ধনের বয়স বেড়ে গেল এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাঁচগাঁও ইউনিয়ন পরিষোদের চেয়ারম্যান সামছুরন্নুর আজাদ বলেন, আমি মৌখিক অভিযোগ পেয়েছি, খোজ নিয়ে দেখবো কিভাবে কার মাধ্যমে তারা জন্মসনদ পেলো।

রাজনগর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা হুসনেহারা বেগম জানান, আমি বিষয়টি জেনে স্থানীয় মেম্বার য়োরম্যানকে তাদের বাড়ীতে পাঠিয়েছি কিন্তু মেয়ের বাবা বাড়ীতে না থাকায় তারা ১ ঘন্টা অপেক্ষা করে ফেরত আসে. আগামীকাল সকালে মেয়ের বাবাকে অফিসে আসতে বলেছি।

রাজনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌসি আক্তার জানান, আমি বিষয়টি অবগত আছি। কাল সকালে আমার অফিসে মেয়ের সব কাগজপত্র নিয়ে আসতে বলেছি।

Sharing is caring!

Loading...
Open