বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির উদ্দিন সাদেকের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন

গোলাপগঞ্জ প্রতিনিধি ::         সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির উদ্দিন সাদেক মিয়া (৭৬) আর নেই। (ইন্নালিল্লাহি—রাজিউন)। তিনি গতকাল সোমবার রাত ১০টায় সিলেটের একটি বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।

মরহুমের জানাযার নামাজ মঙ্গলবার ঢাকাদক্ষিণ বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জানাযাপূর্বে রাষ্ট্রীয়ভাবে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। জানাযা শেষে মরহুমের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাযায় শিক্ষামন্ত্রীসহ রাজনৈতিক, সামাজিক ও বিভিন্ন শ্রেণীপেশায় কর্মজীবি শত শত মানুষ অংশগ্রহন করেন।

জানাযায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ’র প্রেসিডিয়াম সদস্য ও শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, “ভারাক্রান্ত মন নিয়ে আমার সহকর্মী আমির উদ্দিন ছাদেক ভাই এর জানাযায় উপস্থিত হয়েছি। ছাদেক ভাই ছিলেন সদা হাস্যজ্জ্বল ব্যক্তি। তিনি দেশের মানুষের কল্যানে সর্বদা নিয়োজিত ছিলেন। যে কারো বিপদ-আপদে সহমর্মিতার হাত বাড়িয়ে দিতেন। তিনি রাজনীতিকে নিজের পরিবারের চাইতেও বেশি ভালবাসতেন। তার মৃত্যুতে আওয়ামীলীগ একজন ত্যাগী রাজনীতিবিদকে হারালো যা কোনদিন পূরণ হওয়ার নয়।” শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি মরহুমের বিদেহী আত্মার শান্তি ও মাগফেরাত কামনা করে পরিবারের লোকজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

মরহুমের জানাযা পূর্ব সময়ে আরও বক্তব্য রাখেন, সাবেক সংসদ সদস্য ও সিলেট জেলা আওয়ামীলীগ’র সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ’র সভাপতি ইকবাল আহমদ চৌধুরী, ঢাকাদক্ষিণ বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ রেজাউল আমিন, মরহুমের ছোট ভাই শফিক আহমদ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামীলীগ’র সভাপতি এডভোকেট লুৎফুর রহমান, মহানগর আওয়ামীলীগ’র সহ-সভাপতি আব্দুল খালিক, জেলা আওয়ামীলীগ’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুজাত আলী রফিক, এডভোকেট নাসির উদ্দিন খান, জেলা আওয়ামীলীগ’র সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন ইসলাম কামাল, মোহাম্মদ আলী দুলাল, জেলা আওয়ামীলীগ’র উপ-দপ্তর সম্পাদক জগলু চৌধুরী, বিয়ানীবাজার উপজেলা চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার বদরুল ইসলাম শুয়েব, সাবেক সংসদ সদস্য পদপ্রার্থী হাবিবুর রহমান, গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহি অফিসার মোহাম্মদ শরীফুল ইসলাম, গোলাপগঞ্জ পৌরসভার প্যানেল মেয়র হেলালুজ্জামান হেলাল, সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ, সরকারি এমসি একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ মনসুর আহমদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামীলীগ’র কার্য নির্বাহি সদস্য সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস, উপজেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল গফুর, জেলা বিএনপির সদস্য সৈয়দ রেজাউল করিম আলো, গোলাপগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সভাপতি শফিকুর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও পৌর কাউন্সিলর রুহিন আহমদ খাঁন, আওয়ামীলীগ নেতা সাহাব উদ্দিন আহমদ, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনসুর আহমদ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল, লক্ষিপাশা ইউপি চেয়ারম্যান কবির আহমদ মুশন, বাদেপাশা ইউপি চেয়ারম্যান মস্তাক আহমদ, শরীফগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান এমএ মুহিত হীরা, ঢাকাদক্ষিণ ইউপি চেয়ারম্যান এসএম আব্দুর রহিম, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুল আম্বিয়া, উপজেলা আওয়ামলীগ’র ক্রীড়া ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান রিংকু, ছাত্রগোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি শহিদুর রহমান সুহেদ, সিনিয়র সহ-সভাপতি এনামুল হক এনাম, গোলাপগঞ্জ বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আহাদ, ঢাকাদক্ষিণ বাজার বণিক সমিতির সভাপতি বদরুল ইসলাম জামাল, সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমদ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খায়রুল হক, মরহুমের ছেলে ফরহাদ আহমদ, ফুলবাড়ী ইউপি আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মন্নান কয়েছ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক রুহেল, সাবেক ছাত্রনেতা রুমেল সিরাজ, ঢাকাদক্ষিণ ইউপি সদস্য সেলিম আহমদ, আমুড়া ইউপি সদস্য তারেক আহমদ, আওয়ামীলীগ নেতা আবু সুফিয়ান আজম, গোলাপগঞ্জ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের প্রতিষ্টাতা সভাপতি গোলাম দস্তগীর খান ছামিন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, প্রয়াত জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আমির উদ্দিন সাদেক মিয়া উপজেলার ঢাকাদক্ষিণ ইউপির কানিশাইল গ্রামের মরহুম আব্দুল মুক্তাদিরের পুত্র। তিনি মৃত্যু পূর্ব পর্যন্ত উপজেলার ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীট ঢাকাদক্ষিণ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি ছিলেন। মরহুম আমির হোসেন ছাদেক মিয়া দীর্ঘদিন থেকে বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও পাঁচ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open