ছাতকে হাত-পা বেঁধে কৃষককে নির্যাতন

ছাতক সংবাদদাতা:: সুনামগঞ্জের ছাতকে মধ্যযুগীয় কায়দায় হাত-পা বেঁধে প্রকাশ্যে দিবালোকে এক কৃষককে দিনভর নির্যাতন করা হয়েছে। জমি থেকে ধরে এনে প্রতিপক্ষরা বসত ঘরের সামনে সিমেন্টের একটি পিলারের সাথে শক্ত করে বেঁধে তাকে নির্যাতন করে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে।

২৬ আগস্ট রবিবার ছাতক সদর ইউনিয়নের রাতগাঁও গ্রামে এ ঘটনাট ঘটে।

ঘটনার প্রায় ৫ ঘন্টা পর স্থানীয় লোকজন নির্যাতিত কৃষক সুনু মিয়াকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান।

জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে রাতগাঁও গ্রামের মৃত নুর উদ্দিনের পুত্র কৃষক সুনু মিয়ার সাথে একই গ্রামের আজমান আলীর পুত্র নজির উদ্দিন ও ছমির উদ্দিনের পুত্র রুহেল মিয়া পক্ষের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। প্রায় এক মাস আগে তাদের জমি সংক্রান্ত বিরোধটি এলাকার লোকজনদের নিয়ে নিস্পত্তি করে দেন ছাতক সদর ইউপি চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম।

রোববার দুপুরে সুনু মিয়া রোপনকৃত জমিতে দেখাশুনা করতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন তার উপর হামলা চালিয়ে তাকে আহত করে। এক পর্যায়ে তার হাত-পা বেঁধে তাকে টেনে-হেঁচড়ে নজির উদ্দিনের বাড়ির আঙিনায় এনে একটি পিলারের সাথে বেঁধে রেখে মধ্যযুগীয় কায়দায় দিনভর শারীরিক নির্যাতন চালায় প্রতিপক্ষরা। বিকেলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করেন।

এ ঘটনায় নির্যাতিত কৃষক সুনু মিয়া বাদী হয়ে একই গ্রামের রুবেল মিয়া, মনির উদ্দিন, নজির উদ্দিন, সুলতান আলী, তাজ উদ্দিন, সুরুজ আলী, জয়নাল আবেদীনসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে ছাতক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open