কোরবানির ঈদে নগরীতে কঠোর নিরাপত্তা বলয়

নিজস্ব প্রতিবেদক :: কোরবানির ঈদকে কেন্দ্র করে সিলেটে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ লক্ষ্যে নেয়া হয়েছে বিশেষ পরিকল্পনা। সীমিত করা হয়েছে পুলিশ সদস্যদের ছুটিও।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, এই ঈদে র‌্যাব ও পুলিশ মিলিয়ে দুই সহস্রাধিক সদস্য মাঠে কাজ করবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঈদকে কেন্দ্র করে তিন দিনের নিরাপত্তা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এ পরিকল্পনার আওতায় ঈদ জামাতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, চামড়া পাচার রোধ, ফাঁকা নগরীতে নিরাপত্তা বিধান, ছিনতাই প্রতিরোধ, অজ্ঞান পার্টির তৎপরতা রোধ করা করা হবে। সিলেটের পর্যটনকেন্দ্র, বিনোদনকেন্দ্রগুলোতে থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ। সড়ক-মহাসড়কেও থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সতর্ক নজর।

ঈদের দিন শাহী ঈদগাহ ময়দান, হযরত শাহজালাল (রহ.) ও হযরত শাহপরান (রহ.) এর মাজার, আলিয়া মাদরাসা মাঠ, কালেক্টরেট মসজিদ, কুদরত উল্লাহ মসজিদ প্রভৃতি বড় ঈদ জামাতগুলোতে বাড়তি নজরদারি থাকবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার পরিতোষ ঘোষ জানান, নাশকতা এড়াতে মহানগরীর ঈদ জামাতে শুধুমাত্র জায়নামাজ নেয়া যাবে। এমনকি মোবাইল ফোনও কেউ সাথে নিতে পারবেন না।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সূত্রে জানা যায়, সিলেট জেলার সকল উপজেলায় এবং মহানগরী এলাকায় র‌্যাব ও পুলিশের পোশাকধারী সদস্যরা যেমন কাজ করবেন, তেমনি সাদাপোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি), সিটি এসবির সদস্যরা কাজ করবেন।

এ বিষয়ে সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুবুল আলম বলেন, ‘ঈদকেন্দ্রীক নিরাপত্তায় তৎপর রয়েছে পুলিশ। ঈদ জামাতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে। সিলেটে আসা পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করবে ট্যুরিস্ট পুলিশ।’

সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার আব্দুল ওয়াহাব বলেন, ‘নিরাপত্তা নিশ্চিতে সহস্রাধিক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে। সাদা পোশাকেও পুলিশ সদস্যরা দায়িত্ব পালন করছেন।’

র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল আলী হায়দার আজাদ বলেন, ‘নিরাপত্তার স্বার্থে মানুষ র‌্যাবকে চায়। নিরাপত্তায় পাঁচ শতাধিক ফোর্স নিয়োজিত থাকবে।’

Sharing is caring!

Loading...
Open