কোরবানির পশুর ধরণ ও বয়স নিয়ে বিধান……..

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: সব পশু দিয়ে যেমন কোরবানি হয় না, তেমনি সব বয়সের পশু দিয়েও কোরবানি হয় না। এ ব্যাপারে কোরআন-হাদিসে সুনির্দিষ্ট বিধান রয়েছে।

মাসআলা :- গৃহপালিত উট, গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া ও দুম্বা এগুলোর নর-মাদি উভয়টি দ্বারাই কোরবানি করা জায়েয। এসব পশু ছাড়া অন্যান্য পশু যেমন হরিণ, বন্য গরু-গয়াল ইত্যাদি দ্বারা কোরবানি করা জায়েয নয়। (বাদায়েউস সানায়ে ৫/৬৯, কাযীখান ৩/৩৪৮)

মাসআলা :- কোরবানির পশু মোটাতাজা, হৃষ্টপুষ্ট ও নিখুঁত হওয়া উত্তম। (মুসনাদে আহমদ, হা. ১৫৫৩৩)

মাসআলা :- খাশীকৃত জন্তু দ্বারা কোরবানি করা জায়েয, বরং উত্তম। (সুনানে ইবনে মাজাহ, হা. ৩১১৩)

মাসআলা :- উট কমপক্ষে ৫ বছরের হতে হবে। গরু ও মহিষ কমপক্ষে ২ বছরের হতে হবে। আর ছাগল, ভেড়া ও দুম্বা কমপক্ষে ১ বছরের হতে হবে। এর চেয়ে এক দিন কম হলেও কোরবানি হবে না। তবে ৬ মাসোর্ধ্ব ভেড়া ও দুম্বা যদি ১ বছরের কিছু কমও হয়, কিন্তু এমন হৃষ্টপুষ্ট হয় যে দেখতে ১ বছরের মতো মনে হয়, তাহলে তা দ্বারাও কোরবানি করা জায়েয। (বাদায়েউস সানায়ে ৫/৭০)

উল্লেখ্য, ছাগলের বয়স ১ বছরের কম হলে কোনো অবস্থাতেই তা দ্বারা কোরবানি জায়েয হবে না। (কাযীখান ৩/৩৪৮)

মাসআলা :- কোরবানির পশুর বয়সের হিসাব আরবি বর্ষ হিসেবে ধর্তব্য হবে, এতে ইংরেজি বর্ষ থেকে সাধারণত এগারো দিন কমে বর্ষ পূর্ণ হয়। (কিফায়াতুল মুফতী ৮/২১৭)

মাসআলা :- গর্ভবতী পশু দ্বারা কোরবানি জায়েয, তবে প্রসবের সময় আসন্ন হলে সে পশু কোরবানি করা মাকরূহ। (বাদায়েউস সানায়ে ৫/৭৯, ফাতাওয়া কাযীখান ৩/৩৫০)

মাসআলা :- জবাইয়ের পর যদি বাচ্চা জীবিত পাওয়া যায় তাহলে সেটাও জবাই করা ওয়াজিব, তা জবাই না করে রেখে দিলে কোরবানির দিন অতিক্রম হয়ে গেলে তা সদকা করে দেওয়া ওয়াজিব। (কাযীখান ৩/৩৫০)

সূত্র:– মাসিক আল-আবরার, ফকীহুল মিল্লাত ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ।

Sharing is caring!

Loading...
Open