এবার হকারদের দখলে নগরীর রাজপথ,যনজটে নাকাল নগরবাসী……..

নিজস্ব প্রতিবেদক::      সিলেট নগরীর প্রধান প্রধান সড়কের দিকে লক্ষ করলে দেখা যাবে ফুটপাত দখলের প্রতিযোগিতায় নেমেছেন হকাররা। বিভিন্ন স্থানে ফুটপাত ছেড়ে সড়কের অর্ধেক হকারদের দখলে চলে গেছে।

বারবার ফুটপাত বেদখলে চলে যাওয়ার পেছনে পুলিশ প্রশাসন এবং সিটি করপোরেশন একে অপরকে দায়ী করছে। ফলে আদৌ এই সমস্যা নিরসন হচ্ছে না বলে মন্তব্য সংশ্লিষ্টদের।

নগর কর্তৃপক্ষ বলছেন, আর বরাবরের মতো এবারও ফুটপাত দখল শেষে রাজপথ দখলে ব্যাস্ত হকাররা,পুনর্বাসন ব্যবস্থা না থাকায় বারবার ফুটপাত দখল করে সড়কের পাশে পসরা সাজিয়ে বসছে হকাররা। এতে তাদের উচ্ছেদ করলেও পরবর্তীতে পুনরায় তারা সেখানে চলে আসছে।

নগরীর সুরমা মার্কেট পয়েন্ট, সিটি পয়েন্ট, বন্দর বাজার,  কোর্ট পয়েন্ট থেকে জিন্দাবাজার হয়ে আম্বরখানা পয়েন্ট পর্যন্ত এবং কোর্ট পয়েন্ট থেকে পেপার পয়েন্ট হয়ে সুবহানীঘাট পয়েন্ট, জেল রোড সড়ক পর্যন্ত ফুটপাত হকারদের দখলে রয়েছে।

এছাড়া পোস্ট অফিসের পাশ থেকে সিটি করপোরেশন ভবনের সামনে পর্যন্ত পথচারীদের চলাচলের সুবিধার্তে নির্মিত রেলিং ঘেরা ফুটপাতও রয়েছে হকারদের দখলে। শুধু তাই নয় ওখানের সড়ক প্রায় অর্ধেক দখল করে বাজার বসিয়েছেন হকাররা। এসব ফুটপাত দখল করে বসছে অস্থায়ী ফলমূল, সবজি-বাজার, তৈজসপত্র, চশমা, নকল চাবি তৈরি এবং কাপড়সহ অসংখ্য ভ্রাম্যমাণ দোকান।

একারণে ফুটপাত দিয়ে পথচারীদের চলাচল নির্বিঘ্ন হচ্ছে না। পথচারীদের হাঁটতে হচ্ছে মূল সড়ক দিয়ে। এতে অনেক সময় ছোটখাটো দুর্ঘটনায়ও ঘটছে। আবার রাস্তার পাশ জুড়ে রয়েছে অবৈধ পার্কিং। যে কারণে সহসাই যানজট লেগে থাকে।

এ ব্যাপারে মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) আব্দুল ওয়াহাব বলেন, পুলিশ নগরীর বিভিন্ন স্থানে ফুটপাত থেকে হকারদের সরাতে উচ্ছেদ অভিযান চালাচ্ছে। এরপরও পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে ভ্রাম্যমাণ হিসেবে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে হকাররা। এক্ষেত্রে অনেক সময় তাদের মালামাল জব্দ করে নিয়ে আসা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট সিটি করপোরেশন প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজ বলেন, হকার উচ্ছেদে সিটি করপোরেশন বারবার অভিযান চালিয়েছে। তাদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

Sharing is caring!

Loading...
Open