সুনামগঞ্জ-১ আসনের সাংসদ রতনকে লিগ্যাল নোটিশ

জামালগঞ্জ প্রতিনিধি :: সুনামগঞ্জ-১ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতনকে লিগ্যাল নোটিশ প্রেরণ করা হয়েছে।

আদালত অবমাননাকর ডিওলেটার প্রত্যাহারের তাগিদ দিয়ে জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাঁক গ্রামের আবুল কাশেম চৌধুরীর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আইনি সংস্থা ড. জহির অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটস থেকে এমপি রতনকে ওই লিগ্যাল নোটিশটি প্রেরণ করা হয়।

জানা গেছে, আইনি সংস্থা ড. জহির অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটসের অ্যাডভোকেট মুশতাক আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত লিগ্যাল নোটিশে উল্লেখ করা হয়- মোয়াজ্জেম হোসেন রতন চলতি বছরের ৩১ জুলাই একটি ডিও লেটারের মাধ্যমে জামালগঞ্জ উপজেলার ফেনারবাঁক ইউনিয়ন কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণকাজ স্থগিত রাখার জন্য এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলীকে অনুরোধ জানান।

ওই কমপ্লেক্স ভবন ফেনারবাঁক গ্রামে নির্মাণ করার জন্য সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশনা রয়েছে।

সে অনুযায়ী টেন্ডার আহ্বান ও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ দেয়া হয়। কিন্তু স্থানীয় সংসদ সদস্য গত ২০১৬ সালে ১১ ডিসেম্বর ও ২০১৮ সালের ৩১ জুলাই দুটি ডিও লেটারের মাধ্যমে ওই নির্মাণকাজ স্থগিত রাখার নির্দেশনা দেন।

আবেদনকারী আবুল কাশেম চৌধুরী জানান, সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ২০০৯ সালের ৪ অক্টোবর তার নিজস্ব প্যাডে লেখা অপর একটি ডিও লেটারে ফেনারবাঁক গ্রামের পুরনো ভবনের একই স্থানে নতুন ভবন নির্মাণের জন্য স্থানীয় সরকারমন্ত্রীকে অনুরোধ করেন, যা তিনি পরবর্তী ডিও লেটারে গোপন করেছেন।

আইনজীবী তার নোটিশে আরও উল্লেখ করেন, সংসদ সদস্যের দুটি ডিও লেটার আদালতের রায়কে অমান্য করা বা অবমাননা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, সরকারের উন্নয়ন প্রক্রিয়া ব্যাহত রাখার জন্য নিজে ইচ্ছাকৃত প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে সরকারের উন্নয়নকাজের বিরুদ্ধে নিজেকে দাঁড় করিয়েছেন। এমনকি জনস্বার্থের বিরুদ্ধে হওয়ায় ওই ডিও লেটার সংবিধানের পরিপন্থীও।

সুতরাং নোটিশ প্রেরণের সাত দিনের মধ্যে ডিও লেটার প্রত্যাহার না করা হলে তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননা ও সংবিধান লঙঘনের আইনি কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। গত ১২ আগস্ট এমপি রতনকে লিগ্যাল নোটিশটি প্রেরণ করা হয়।

এ প্রসঙ্গে জানতে সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপির ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনে বুধবার কয়েক দফা কল করলেও তিনি রিসিভ না করায় তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Sharing is caring!

Loading...
Open