নগরীতে নিহত ছাত্রদল নেতা রাজুর গ্রামের বাড়িতে মেয়র আরিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক ::     সিলেট সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বাসার সামনে বিজয় উল্লাস চলাকালে প্রতিপক্ষের হামলায় নির্মমভাবে নিহত হওয়া ছাত্রদল নেতা ফয়জুর রহমান রাজুর গ্রামের বাড়িতে গেলেন সদ্য নির্বাচিত মেয়র।

বুধবার (১৫ আগস্ট) দুপুরের জোহরের নামাজ শেষে মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর উপজেলার শাহপুর গ্রামে রাজুর বাড়িতে তার রুহের মাগফেরাত কামনা করে আয়োজিত কোরআন খতম, মিলাদ, দোয়া ফাহফিল ও কবর জিয়ারত করেন তিনি।

মোনাজাত ও দোয়া মাহফিল শেষে আগত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, সিলেট ‘ল’ কলেজের শিক্ষার্থী ও সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক ফয়জুর রহমান রাজুর মৃত্যুতে আমি গভীর শোকাহত। তাই এই শোককে শক্তিতে পরিণত করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, মেধাবী ছাত্রদল নেতা রাজুর খুনিদের দ্রুত খুঁজে বের করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান তিনি। পরে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী নিহত রাজুর পিতা-মাতা ও স্বজনদের সান্ত্বনা দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন মৌলভীবাজার সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, সিলেট মহানগর বিএনপির সহ সভাপতি সালেহ আহমদ খসরু, সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক সৈয়দ মঈন উদ্দিন সোহেল, সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমান সাদিক, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুস শুকুর, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী (ভিপি মাহবুব), সিলেট জেলা পরিষদের সদস্য মো. শাহপরান, জেলা বিএনপির সহ ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ফখরুল ইসলাম চৌধুরী, মহানগর বিএনপির সদস্য আব্দুস সামাদ তুহেল, বিএনপি নেতা মঈন উদ্দিন, নিয়ামত এলাহি, বেলাল আহমদ, ও সাবেক ছাত্রনেতা নাজিম উদ্দিন পান্না সহ মৌলভীবাজার ও সিলেটের বিপুল সংখ্যক বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদলের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, শনিবার রাতে নগরীর কুমারপাড়ায় নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর বাসার সামনে বিজয় উল্লাস চলাকালে প্রতিপক্ষের হামলার খুন হন সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সহ-প্রচার সম্পাদক ফয়জুল হক রাজু। এসময় আহত হন আরও দুই ছাত্রদল নেতা।

জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে অভিযোগ ওঠে। ফয়জুল হক রাজু কমিটির বিপক্ষে ছিলেন। কমিটির পক্ষের নেতাকর্মীরা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলেও অভিযোগ ওঠে।

এদিকে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুর রকিব চৌধুরীর নেতৃত্বে এই হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করেছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। আব্দুর রকিব নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত।

Sharing is caring!

Loading...
Open