বিশ্বনাথে স্বামীর হাতুড়িপেটায় কাটা গেল স্ত্রীর জিহবা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বিশ্বনাথ :: সিলেটের বিশ্বনাথে সৌদি আরব প্রবাসী স্বামী আজম আলীর হাতুড়ি আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন ছাফিয়া বেগম।

হাতুড়ির আঘাতে তিন সন্তানের জননী ছাফিয়া বেগমের মুখের ভেতর থেকে জিহŸা বের হয়ে গেছে বলে শোনা গেছে। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার বৈদ্যকাপন গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় ছাফিয়া বেগম সিলেটের পার্কভিউ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে স্ত্রীকে হাতুড়ি পেটার পর প্রবাসী আজম আলী গ্রামবাসীর গণধোলাই থেকে রক্ষা পেতে নিজের পার্শ্ববর্তী সুড়িরখাল গ্রামের মসজিদে গিয়ে আশ্রয় নেন। জুমার নামাজ শেষে প্রবাসী আজম আলী নিজেকে পুলিশের হাতে তুলে দিতে মুসল্লিদের বলেন। আজম আলীর কথা শুনে গ্রামবাসী তাকে থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। বর্তমানে আজম আলী পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন।

আহত ছাফিয়া বেগমের পুত্র শামীম আহমদ জানিয়েছেন, ছাফিয়া বেগমের মাথার ডান কানের মধ্যে হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করেছেন প্রবাসী আজম আলী। এতে গুরুতর আহত হওয়ায় ছাফিয়া বেগমকে চিকিৎসার জন্য প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান তার পুত্রসহ স্থানীয় লোকজন। সেখান থেকে তাকে পার্কভিউ হাসপাতালে নেওয়া হয়।

থানায় সাংবাদিকদের কাছে নিজের ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রবাসী আজম আলী বলেন, চাচাতো ভাই জুনেদের সাথে তার স্ত্রী ছাফিয়া বেগমের পরকিয়ার সম্পর্ক রয়েছে। আর এ বিষয় (পরকিয়া) নিয়ে গ্রামের লোকজনও একাধিকবার সালিশ-বৈঠকও করেছেন। এরপরও নিজের স্ত্রী ঠিক না হওয়ায় তিনি (আজম) নিরুপায় হয়ে এ কাজটি করতে বাধ্য হয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, আজম আলী পুলিশের হেফাজতে আছেন। গুরুতর আহত অবস্থায় ছাফিয়া বেগম চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open