সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন: সুবিদবাজারের ঘটনা নিষ্পত্তিতে মেয়র প্রার্থী জুবায়েরে হস্তক্ষেপ চান আব্দুল গণি

সিলেট নগরীর সুবিদবাজারের বাসিন্দা ও ব্যবসায়ী হাসান আব্দুল গণি সংবাদ সম্মেলন করে সৃষ্ট ঘটনার সুষ্ঠু সমাধানের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি এ ক্ষেত্রে টেবিল ঘড়ি প্রতীকের স্বতন্ত্রী প্রার্থী এহসানুল মাহবুব জুবায়ের ও তার দলের শীর্ষ নেতাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সোমবার দুপুরে সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ আহ্বান জানান তিনি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন হাসান আব্দুল গণি নিজেই। তিনি বলেন, আমি ব্যবসা করে দিনাতিপাত করি। নির্বাচন এলে কেবল ভোট প্রদান করি। ব্যস্ত জীবনে রাজনীতির সঙ্গে জড়ানো বা কারো সাথে ঝগড়া বিভেদ সৃষ্টি হোক, তাও চাই না।
তিনি বলেন, আশাকরি টেবিল ঘড়ি প্রতীকের প্রার্থী ও সংশ্লিষ্ঠ দলের যেসব নেতৃবৃন্দ আছেন, তারা সৃষ্ঠ ঘটনার সুষ্ট সমাধান দেবেন। বিষয়টি তাঁদের নজরে আনার জন্য আজকের এই সংবাদ সম্মেলন। মেয়র প্রার্থী জুবায়ের বা তাঁর দলের শীর্ষ সারির নেতৃবৃন্দ বিষয়টি নিস্পত্তিতে এগিয়ে আসলে আমি ও আমার পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তায় বিঘœ ঘটবে না বলে আমার বিশ্বাস।

আব্দুল গণি বলেন, গত শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর জামায়াত সমর্থিত টেবিল ঘড়ি মার্কার মেয়র প্রার্থী এডভোকেট এহছানুল মাহবুব জুবায়ের এর সমর্থকরা নগরীর সুবিদবাজার বায়তুল মাকসুদ জামে মসজিদের ভেতরে লিফলেট বিতরণ করেন। এ সময় মুসল্লিরা মসজিদের ভেতরে লিফলেট বিতরণে আপত্তি দিয়ে মসজিদের বাইরে গিয়ে লিফলেট বিতরণ করতে অনুরোধ করেন। মুসল্লিদের হয়ে আমিও তাদেরকে বাইরে গিয়ে লিফলেট বিতরণের অনুরোধ করি। কিন্তু জামায়াত সমর্থিত ওই মেয়র প্রার্থীর লোকজন এককভাবে আমাকে ভুল বুঝে বসেন।

তিনি বলেন, বিকেলের দিকে আমি বাসায় যাওয়ার পর জামায়াত সমর্থিত ঘড়ি মার্কার কর্মী সমর্থকরা সুবিদবাজারে অবস্থিত আমার বাসার পাশের মৌরসী রেস্টুরেন্টে যায়। সেখানে আমাকে না পেয়ে রেস্টুরেন্ট ভাঙচুর করে চলে যায়।
নির্বাচনী প্রচারণায় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান তথা মসজিদ বা মন্দিরে প্রচারণা চালানোর ক্ষেত্রে বিধি নিষেধ রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মুসল্লিরা যদি নির্বাচনি বিধি নিষেধের
বিষয়টি স্মরণ করিয়েও দেন, তাতে অন্যায় কিছু করেছেন বলে মনে হয় না।
ওইদিনের ঘটনার পর সুবিদবাজার এলাকায় তার বাসার সামনে মোটরসাইকেল যোগে মেয়র প্রার্থী জুবায়েরের কর্মী সমর্থকরা মহড়া দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন আব্দুল গণি। তুচ্ছ এ ঘটনার জের ধরে যে কোনো সময় হামলার শিকার হতে পারেন বলে আশংকা প্রকাশ করেন এই ব্যবসায়ী। এ জন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাওয়া-আসা বন্ধ করে দিয়েছেন তিনি। ছেলেমেয়েসহ পরিবারের সদস্যদের চলাফেরা সীমিত করে নিয়েছেন। ঘটনাটি নিস্পত্তিতে টেবিল ঘড়ি প্রতীকে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী মহানগর জামায়াতের আমীর এডভোকেট এহছানুল মাহবুব জুবায়ের ও দলের দায়িত্বশীল নেতাকর্মীদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি। – বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open