‘মৃত লোকের ভোটদান’, অভিযোগ করায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: সাংবাদিকদের সংগঠন বিএফইউজে নির্বাচনে মৃত ব্যক্তির ভোটদানের অভিযোগ তোলায় সাংবাদিক জাফর ওয়াজেদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ায় তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি ও বিএফইউজের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব বাদী আদালতে অভিযোগটি দায়ের করেন।

কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম এম এম মোর্শেদ অভিযোগ আমলে নিয়ে আগামী ৭ দিবসের মধ্যে জাফর ওয়াজেদকে আদালতে হাজির হয়ে জবাব দেওয়ার আদেশ দিয়েছেন বলে বাদীর আইনজীবী সাজ্জাদ হোসেন সেনা জানান।

তিনি বলেন, ১৩ জুলাই কুষ্টিয়ায় অনুষ্ঠিত বিএফইউজের নির্বাচন নিয়ে ১৫ জুলাই নিজ ফেসবুক আইডিতে এক পোস্ট দেন বাংলাবাজার পত্রিকার সাবেক প্রধান প্রতিবেদক জাফর ওয়াজেদ।

“‘মৃত ব্যক্তির ভোট দান’ শিরোনামে ওই পোস্টে তিনি প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল ও সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি ও বিএফইউজের নির্বাহী সদস্য রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব সম্পর্কে মানহানি ও আপত্তিকর মন্তব্য করেন।

“যাকে মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন, উদ্দেশ্য প্রণোদিত ও হীনমন্যতার প্রকাশ উল্লেখ করে বিচার চেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন ভুক্তভোগী।”

ভোটার তালিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠার পর বিএফইউজের এই অংশের নির্বাচন এবার আটকে গিয়েছিল। আদালত স্থগিতাদেশ তুলে নেওয়ার পর গত শুক্রবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুলাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে জাফর ওয়াজেদ লিখেন, মৃত লোকের ভোটদান!! বিএফইউজে নির্বাচনে কুষ্টিয়াতে মৃত সাংবাদিকের ভোটও গ্রহণ করা হয়েছে। ৫৭ ভোটারের মধ্যে ৫৫টি ভোট নেয়া হয়েছে। কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতির বাসায় তথাকথিত ভোট হয়। সব ভোট দেখানো হয়েছে ওমর ফারুকের নামে। মূলত অনেককে ভোট দিতে দেয়া হয়নি।তাদের ভোট দিয়ে দেয়া হয়। এইসবদের নেতা হলেন ইকবাল ও বুলবুল। তাদের পরামর্শে প্রতিপক্ষের ভোটারদের ভোট গ্রহণ করতে দেয়া হয়নি। ঢাকায় তারা দুশ জনের ভোটাধিকার গঠনতন্ত্র লঙ্ঘন করে স্থগিত করেছিল। যে কারণে মামলা হয়। নির্বাচন ঝুলে যায়। আসুন এদের মুখোশ উন্মোচন করি।

Sharing is caring!

Loading...
Open