বড়লেখায় উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় ভাইকে ছুরিকাঘাত, প্রতিবাদে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

বড়লেখা প্রতিনিধি:: বড়লেখায় কলেজছাত্রী বোনকে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ভাইকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। আহত ওই কলেজছাত্রের নাম তোফাজ্জল হোসেন রাব্বি (১৭)। আহতাবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। রাব্বি বড়লেখা ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র এবং উপজেলার সুড়িকান্দি বাদেজঙ্গল গ্রামের মৃত ফারুক উদ্দিনের ছেলে। মঙ্গলবার বেলা দুইটায় পৌরশহরের উত্তরবাজারে এ ঘটনাটি ঘটে। এর প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা প্রায় ১ ঘন্টা কুলাউড়া-চান্দগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে জড়িতদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

পুলিশ, কলেজ শিক্ষার্থী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, পৌরশহরের পাখিয়ালা এলাকার জনৈক প্রবাসীর ছেলে রেহান আহমদ (১৬) স্কুল-কলেজের ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করে আসছিলো। সম্প্রতি সে বড়লেখা ডিগ্রি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র তোফাজ্জল হোসেন রাব্বির বোনকে উত্ত্যক্ত করে। বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করেন তোফাজ্জল হোসেন রাব্বি। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এর জের ধরেই মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) দুপুরে পৌরশহরের উত্তরবাজার এলাকায় রেহানের নেতৃত্বে ৭-৮ যুবক রাব্বির ওপর হামলায় চালায়। এসময় তারা তাকে মাথায় ছুরিকাঘাত করে দ্রুত পালিয়ে যায়। পরে প্রত্যক্ষদর্শীরা রাব্বিকে আহতবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

এদিকে কলেজছাত্র তোফাজ্জল হোসেন রাব্বির ওপর হামলার প্রতিবাদে কলেজের সাধারণ শিক্ষার্থীরা বেলা দুইটায় তাৎক্ষণিক কুলাউড়া-চান্দগ্রাম আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের আশ্বাস দিলে তারা অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়।

রাব্বির সহপাঠি কলেজছাত্র মিশকাত আহমদ, মাহিন আহমদ, মাসুদ আহমদ, আদনান, মিজান, নোমান আহমদ, নওশাদ ও নোমান আহমদ অভিযোগ করেন, ‘আমাদের বন্ধু রাব্বি খুবই ভালো ছেলে। রাব্বির বোনসহ কলেজের মেয়েদের রেহান প্রতিদিন উত্যক্ত করে। রাব্বি এর প্রতিবাদ করায় বখাটে রোহান তার দলবল নিয়ে তাকে ছুরি দিয়ে কুপিয়েছে। রেহান কলেজের ছাত্র নয়। সে প্রতিদিন ৮-১০জন বহিরাগত যুবক নিয়ে কলেজের ছাত্রীদের উত্যক্ত করে। প্রতিবাদ করলে সে ছুরি দেখিয়ে ভয় দেখায়। অনেকে শিক্ষার্থী ভয়ে প্রতিবাদ করে না। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চাই। অন্যথায় কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ সহিদুর রহমান জানান, এক কলেজ শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতের প্রতিবাদে কিছু শিক্ষার্থী সড়ক অবরোধ করে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতারের আশ্বাস দেয়ায় তারা অবরোধ প্রত্যাহার করেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open