অতীতের প্রেক্ষাপট, বর্তমানের প্রেক্ষাপট: উন্নয়নকাজে অবহেলা জনপ্রতিনিধির


সুরমা টাইমস ডেস্ক:: গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) এর সৃতি বিজড়িত ২৪নং ওয়ার্ডের তেররতন, সৈদানীবাগ, সাদারপাড়া সহ বেশ কয়েকটি এলাকার উন্নয়নকাজে জনপ্রতিনিধিদের অবহেলা ও লুকোচুরির অভিযোগ উঠেছে।

গত ২৯-০৬-১৮ ইং তারিখে বহুল আলোচিত প্রথম আলোতে প্রকাশিত তেররতন এলাকার “নালা তো নয়, যেন ময়লার ভাগার” নামক শিরোনামের চেহারা একদিনেই পাল্টে দিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন। অথচ জনপ্রতিনিধির গত পাঁচ বছরে পাঁচবারও নালাটি পরিষ্কার হয়েছে কি না তা নিয়ে সন্দেহে তেররতন এলাকাবাসী।

তেররতন এলাকাবাসীর অভিযোগ, ২৪নং ওয়ার্ডের অন্যান্য এলাকার তুলনায় সব চেয়ে বেশি সংখ্যক ভোটার তেররতন এলাকায় এমনকি গুরুত্বপূর্ণ এলাকা হিসেবে সিলেটের বুকে সুনাম-পরিচিতি ও রয়েছে অনেক।

তারপরও রাস্তাঘাটের দুরবস্থা, ড্রেন, জলাবদ্ধতা, বিশুদ্ধ খাবার পানি, মশার বংশ বিস্তার, ডাস্টবিন সহ অসংখ্য সমস্যা ও বিভিন্ন ধরণের ভাতা, সরকারি অনুদান থেকে বঞ্চিত তেররতন এলাকার বাসিন্দারা। সিটি কর্পোরেশন থেকে ২৪নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন কাজের জন্য এত টাকা বরাদ্দ হওয়ার পরও কেন উন্নয়নকাজ সম্পন্ন হল না এ নিয়েই সবার মনে এখন কৌতূহল সৃষ্টি হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সৈদানীবাগ এলাকার কয়েকজন মুরব্বী জানান, গত পাঁচ বছরে সৈদানীবাগ এলাকায় কোনো ধরণের উন্নয়নমূলক কাজকর্ম হয়নি তারপরও জনপ্রতিনিধি বিভিন্ন ভাবে বলে বেড়াচ্ছেন তিনি নাকি সৈদানীবাগে উন্নয়নকাজ করিয়েছেন। অন্যদিকে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর চাপের মুখে পড়ে গত ১৮ রমজানে সৈদানীবাগ-তেররতনের প্রধান প্রবেশ মুখের রাস্তা ও ড্রেনের সংস্কার কাজ শুরু করেন তারপর হঠাৎ ক্ষমতা হস্তান্তরের অজুহাত দেখিয়ে গত ২৭-০৬-১৮ইং তারিখে সংস্কার কাজ বন্ধ করে মালপত্র অন্যত্র সরিয়ে নেন।

বর্তমানে প্রস্থ ৫/৬ ফুট এবং দৈর্ঘ্য ৫০ ফুট রাস্তা গর্ত খুরে মিনি লেকে রূপান্তরিত করে রেখেছেন জনপ্রতিনিধি। রাস্তাটি জনসাধারণের চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় বাধ্য হয়েই ঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করছে শতশত মানুষ।

চলমান………

Sharing is caring!

Loading...
Open