মোগলাবাজার থানা পুলিশ কর্তৃক ০৪(চার) জন ডাকাত গ্রেফতার

মোগলাবাজার থানা পুলিশ কর্তৃক ০৪(চার) জন ডাকাত গ্রেফতার।
অদ্য ২৮/০৬/১৮ খ্রি. তারিখ রাত্র অনুমান ০৩.২৫ ঘটিকার সময় এসএমপির, মোগলাবাজার থানাধীন জলকরকান্দী গ্রামের মৃত আব্দুল মালিক @ মকু মিয়ার বাড়ীতে ৬/৭ জনের ডাকাতদল দেশীয় লোহার রড, চাকু, নিয়া ঘরের দরজায় লাথি মেরে ছিটকারী ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করত: গৃহকর্তী ও লোকজনদের জোর পূর্বক হাত পা বেঁধে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে ঘরের কাঠের আলমীরা হতে নগদ অনুমান ১০,০০০/- টাকা, একজোরা কানের স্বর্নের দুল অনুমান চারআনা ও একটি গলার স্বর্ণের চেইন ওজন অনুমান ছয়আনা, ০৫টি পুরাতন বিভিন্ন মডেলের মোবাইল ফোন ও ০২টি হাত ঘড়ি সহ সর্ব মোট মূল্য আনুমানিক ৬৫,০০০/- টাকার মালামাল লুন্ঠন করে নিয়া যায়। ডাকাতরা ডাকাতি করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ঘরের লোকজন শোরচিৎকার করলে পার্শবর্তী মসজিদ হতে ডাকাত ডাকাত বলে মাইকিং করার সাথে সাথে থানার টহল পুলিশ সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যায় এবং মোবাইল ফোনে সংবাদ পেয়ে অফিসার ইনচার্জ এর নেতৃত্বে থানার অন্যান্য অফিসার ও ফোর্স টহল পুলিশের সাথে যোগ দিলে এলাকা ঘেরাও করতঃ অভিযান পরিচালনা করে স্থানীয় জনগনের সহায়তায় পুলিশ লাল মাটিয়া হাউজিং এর পাশে হাওড় এলাকা হতে এবং ডোবা ও কচুরীপানা মধ্য হতে ১। বাচ্চু মিয়া(২৭) পিতা: আহাদ মিয়া, সাং ডেঙ্গার বন, থানা: শ্রীমঙ্গল, জেলা: মৌলভীবাজার বর্তমানে সাং খোজারখলা, পশ্চিম মহল্লা (এরশাদ মিয়ার কলোনী), থানা: দক্ষিন সুরমা, সিলেট, ২। দুলাল মিয়া(৩০) পিতা: মৃত মর্তুজ আলী, সাং চালবন্দ, থানা: বিশ্বম্ভরপুর, জেলা: সুনামগঞ্জ বর্তমান সাং বনকলাপাড়া, সুবিদ বাজার, বাসা নং ১০৪, নুরানী মাখন মিয়ার কলোনী, থানা: এয়ারপোর্ট, সিলেট, ৩। ফজলু মিয়া(৩৭) পিতা: মৃত আব্দুল কাইয়ুম, সাং স্বজনশ্রী, থানা: জগন্নাথপুর, জেলা: সুনামগঞ্জ বর্তমান সাং বালুচর, ০২নং মসজিদ, নজরুল মিয়ার কলোনী, থানা: শাহপরান (রহঃ), সিলেট, ৪। গফুর@ সেলিম আহমদ(৪০) পিতা: মৃত আ: খালেক, সাং দূর্গাপুর (বাহাদুরপুর), থানা: আশুগঞ্জ, জেলা: ব্রাহ্মনবাড়ীয়া বর্তমান সাং টিকরপাড়া, পীরের বাজার, শশুর আবুল মিয়ার বাড়ী, থানা: শাহপরান(রহঃ), সিলেটদেরকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারের পরপর বাড়ী গৃহকর্তী ও লোকজন ডাকাতদেরকে সনাক্ত করে। ডাকাতদের সহযোগী পলাতক আরো ৩/৪ জনকে গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ধৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি মামলা সহ একাধিক মামলা রয়েছে। মামলা রুজুর বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন আছে।—বিজ্ঞপ্তি।

Sharing is caring!

Loading...
Open