সিলেটে প্রতারনা মামলায় ট্রাভেলস ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

ডেস্ক রিপোর্ট: সিলেটে চেক প্রতারনা মামলায় এক টাভেলস ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৮ জুন) সিলেটের চীফ মেট্রোপলিটন আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট এ পরোয়ানা জারি করেন। পলাতক ট্রাভেল ব্যবসায়ী সামছুল ইসলাম সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার কামালবস্তী বেকিমুরারপাড়ের আবুল হোসেনের পুত্র ও সিলেট নগরীর জিন্দাবাজার জল্লারপাড় রোডস্থ ওয়েস্ট ওয়াল্ড ৫ম তলার মাহিন ট্রাভেলস’র স্বত্বাধিকারী।
মামলা সূত্রে প্রকাশ, মাহিন ট্রাভেলস’র স্বত্বাধিকারী সামছুল ইসলাম সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার জলঢুপ উছপাড়ার পারভীন বেগমের ভগ্নিপুত্রকে চাকুরি প্রদানের কথা বলে তার কাছ থেকে ২লাখ ৭০ হাজার টাকা গ্রহণ করেন। চাকরি দিতে না পারলে টাকা ফেরত চাইলে টাকা পরিশোধে গড়িমসি করতে থাকেন। এক পর্যায়ে সামছুল ইসলাম পারভীন বেগমকে ২লাখ টাকার বিপরীতে ডাচ-বাংলা ব্যাংক-এ থাকা তার নিজ নামীয় একাউন্টের (১২১ ১০১ ২২৫৬৯৩) একখানা চেক (নং-৪১০৯৪১৫) প্রদান করেনে। গত ২৫ জানুয়ারি চেকখানা নগদায়ন করতে গেলে তার ওই একাউন্ট ক্লোজ্ড পাওয়া গেলে চেক ডিজঅনার হয়। পরে পারভীন বেগম ট্রাভেলস ব্যবসায়ী সমছুল ইসলামের কাছে লিগ্যাল নোটিশ পাঠালেও কোন উত্তর দেন নি। এ অবস্থায় পারভীন বেগম গত ১৩ মার্চ সিলেটের চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে সিআর ৬৪৮/১৮ নং মামলা দায়ের করেন। মামলায় ট্রাভেলস ব্যবসায়ী সমছুল ইসলামকে নোটিশ ও সমন করলে তিনি আদালতে হাজির না হয়ে সম্পূর্ন গা ঢাকা দেন। পাশপাশি সিলেট নগরীর ফাজিল চিশত ২৪/১ শাহ ভিলা (ভাড়াবাসা) ত্যাগ করে সপরিবারে অজ্ঞাতস্থানে চলে যান। ফলে আদালত বৃহস্পতিবার ট্রাভেলস ব্যবসায়ী সমছুল ইলামের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন। গ্রেফতারী পরোয়ানার খবর পেয়ে সমছুল ইসলাম অজ্ঞাতস্থান থেকে পারভীন বেগম ও তার স্বজনদের মোবাইল ফোনে নানা হুমকি দিয়ে চলেছেন বলে অভিযোগে প্রকাশ।

Sharing is caring!

Loading...
Open