বিশ্বনাথের সংবাদকর্মী সালাম রিমান্ডে……..

বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:: সিলেটের বিশ্বনাথে পারিবারিক বিরোধের জের ধরে আপন চাচাতো ভাইয়ের দায়েকৃত একটি মামলায় গ্রেফতারকৃত দৈনিক ইনকিলাব ও সিলেট বাণী’র বিশ্বনাথ প্রতিনিধি আব্দুস সালামের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

গতকাল বুধবার (১৬ই মে) সিলেট সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ৩য় আদালতে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট সিআইডি ইন্সপেক্টর মোঃ আব্দুল আউয়াল গ্রেফতারকৃত আব্দুস সালামকে ৩দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করলে ম্যাজিষ্ট্রেট কাঁকন দে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিবাদী পক্ষের আইনজীবী এডভোকেট এ এস এম গফুর।

গত রোববার বিকেলে বিশ্বনাথ উপজেলা সদরের নতুন বাজারস্থ তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে গ্রেফতার করে সিআইডি। আব্দুস সালাম উপজেলার রামপাশা ইউনিয়নের আব্দুর রহিমের পুত্র। পরদিন সোমবার তাকে পরদিন তাকে জেলহাজতে করা হয়।

সূত্রে জানা যায়, আব্দুস সালামের চাচাতো ভাই, সিলেট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর পরিচালক ও মৃত ইব্রাহিম আলীর পুত্র ইমরান হোসেন বাবুলের সাথে পারিবারিক বিরোধ নিয়ে একাধিক পাল্টাপাল্টি মামলা দায়ের করা হয়। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সালিশানগণ মিমাংশা করেও দেন।

সূত্র মতে- ২০১৭ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি আব্দুস সালামসহ তিনজনকে আসামী করে একটি পর্নোগ্রাফী মামলা দায়ের করেন ইমরান হোসেন বাবুল। (বিশ্বনাথ থানার মামলা নং- ০৪ তাং-০৫.০২.২০১৭ইং)। এই মামলাটি দীর্ঘ তদন্ত শেষে সত্যতা প্রমানিত না হওয়ায় ২০১৭ সালের ১৫জুন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই রাজিব রহমান আদালতে ফাইনাল রিপোর্ট দাখিল করেন।

অন্যদিকে, আব্দুস সালামের দায়েরি মামলাটিও (বিশ্বনাথ থানার মামলা নং-২০, তাং ২৭.০৯.২০১৬ইং) আপোষের মাধ্যমে নিস্পত্তি করা হয়। কিন্তু আপোষে নিষ্পত্তি হওয়া ইমরান দায়েরকৃত মামলাটি ফাইনাল রিপোর্টের বিরুদ্ধে নারাজি দাখিল করলে আদালত তদন্তের জন্য সিআইডি পুলিশকে নির্দেশ দেন। এ মামলার প্রেক্ষিতে তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট সিআইডি ইন্সপেক্টর মোঃ আব্দুল আউয়াল তাকে গ্রেফতার করেন।

এদিকে, সাংবাদিক আব্দুস সালাম ২০১৭ সালের ২৪ ডিসেম্বর ইমরান হোসেন বাবুলের বিরোদ্ধে বিশ্বনাথ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন (যার নং- ১২০১)। আব্দুস সালাম তার ও পরিবারের জানমালের নিরাপত্তা চেয়ে ডিআইজি, সিলেট র্যাব ও পুলিশ সুপার বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন।

Sharing is caring!

Loading...
Open