প্রথমবারের মতো পুরুষাঙ্গ ও অণ্ডকোষ প্রতিস্থাপন…….!

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: আফগানিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে আহত এক মার্কিন সৈন্যের দেহে পুরুষাঙ্গ ও অণ্ডকোষ প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের মেরিল্যান্ড রাজ্যের জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল শল্যচিকিৎসক এই অস্ত্রোপচারটি করেন। তারা একজন মৃত দাতার পুরুষাঙ্গ, ‘মুষ্ক’ বা অণ্ডকোষের থলি এবং তলপেটের কিছুটা অংশ প্রতিস্থাপন করেন ওই মার্কিন সৈন্যের দেহে।

চিকিৎসকদের দাবি, অস্ত্রোপচারের পর ওই সৈন্য যৌন-ক্ষমতা ফিরে পাবেন। তবে প্রতিস্থাপন না করে তারা যদি ক্ষতিগ্রস্ত পুরুষাঙ্গটি ‘পুন:নির্মাণ’ করতেন তাহলে ওই সৈন্যটির পক্ষে যৌন-ক্ষমতা ফিরে পাওয়া অসম্ভব হতো।

গত মার্চ মাসে ওই সৈন্যের দেহে টানা ১৪ ঘণ্টা ব্যাপী অস্ত্রোপচার চলে। তবে চিকিৎসরা বলেছেন, নৈতিক বিবেচনা থেকে সৈন্যটির অণ্ডকোষ দুটি প্রতিস্থাপন করা হয়নি।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগের প্রধান ড. এ্যান্ড্রু লী সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, যুদ্ধে অনেক সময় লোক এমন গুরুতরভাবে আহত হন। যা তারা গোপন রাখেন এবং তাদের জীবনে এর যে প্রভাব পড়ে তা অনেকেই উপলব্ধি করতে পারেন না।

অণ্ডকোষ প্রতিস্থাপন

তিনি আরো বলেন, যৌনাঙ্গের ক্ষতি হওয়াটা হচ্ছে যুদ্ধে আহত হবার এমন একটি দিক যা নিয়ে কথা বলা হয় না – অথচ তা মানুষের আত্মপরিচয়, মর্যাদাবোধ এবং সম্পর্কের ক্ষেত্রে গুরুত্বর প্রভাব ফেলে।

প্রসঙ্গত, পৃথিবীর প্রথম পুরুষাঙ্গ প্রতিস্থাপনে অস্ত্রোপচার হয়েছিল ২০১৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায়।

Sharing is caring!

Loading...
Open