কানাইঘাটে ডাকাতির বিপুল সংখ্যক সরঞ্জাম উদ্ধার, গ্রেফতারকৃতদের আদালতে প্রেরণ

কানাইঘাট প্রতিনিধি::      কানাইঘাট সদর ইউপির ছোটদেশ আগফৌদ গ্রামে দুধর্ষ ডাকাতির ঘটনায় পুলিশ বিপুল সংখ্যক ডাকাতির সরঞ্জাম উদ্ধার সহ এ পর্যন্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে। এদের মধ্যে নাজিম উদ্দিনকে শুক্রবার ও সাবু আহমদকে শনিবার আদালতে সোর্পদ করা হয়েছে এবং ডাকাত দুলালের স্ত্রীকে জকিগঞ্জ থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে থানা পুলিশ গত বৃহস্পতিবার থেকে বিভিন্ন স্থানে অভিযান শুরু করেছে এবং ঘটনার দিনই পুলিশ একই গ্রামে সাবেক ইউপি সদস্য মৃত আফতাব উদ্দিনের ছেলে নাজিম উদ্দিনকে গ্রেফতার করে। তার দেওয়া তথ্য মতে শুক্রবার সন্ধ্যায় কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদের নেতৃত্বে পুলিশের বড় একটি দল জকিগঞ্জ উপজেলা বীরশ্রী ইউপির পুর্ব খালপার গ্রামে সেখানকার পুলিশের সহযোগিতায় অভিযান চালিয়ে মৃত মঈন উদ্দিনের পুত্র সাবু আহমদকে আটক করে। পরে সাবু আহমদের দেওয়া তথ্যে একই উপজেলার বারহাল ইউপির বিলবাড়ী গ্রামের এনাম আহমদ চৌধুরীর বাড়িতে ভাড়াটিয়া বিয়ানীবাজার উপজেলার জলঢুপ গ্রামের দুলাল আহমদের বসত ঘরে অভিযান দেয় পুলিশ।

এ সময় বারহাল ইউপির চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, সদস্য সুমন আহমদ, মখদম আলী সহ অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। পুলিশের শ্বাসরুদ্ধকর অভিযানের খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে কয়েক শতাধিক উৎসুক লোকজন জমায়েত হয়ে গোটা বাড়ী ঘিরে ফেলেন বলে জানা গেছে। প্রকাশ্যে জন সম্মুখে পুলিশ ঐ ডাকাতের বসত বাড়ীতে অভিযান চালিয়ে একটি পাইপগান, ৫ রাউন্ড গুলি সহ বিপুল পরিমান ডাকাতির সরঞ্জাম উদ্ধার করে এবং ডাকাত দুলালকে না পেয়ে তার স্ত্রীকে আটক করে পুলিশ। উল্লেখ্য এনাম চৌধুরীর পরিবার সিলেটে বসবাস করায় দুলাল ও তার স্ত্রী এ বাড়িটি দেখা শুনা করেন বলে জানা যায়।

এ ব্যাপারে কানাইঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুল আহাদ সবাইকে ধৈর্য্য ধারনের আহবান জানিয়ে বলেন প্রকৃত দোষীদের খুজে বের করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। আগামী কিছু সময়ের মধ্যে এই ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে বাকি জড়িতদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open