শাবিতে বিভাগীয় প্রধানের হাতে শিক্ষক লাঞ্ছিতের অভিযোগ

শাবি প্রতিনিধি:: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবি)-তে নিজ বিভাগের প্রধানের হাতে লাঞ্ছনার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো. রফিকুল ইসলাম। এ ঘটনায় উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বরাবর একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছেন তিনি।

ওই ঘটনার সময় বিভাগের অন্যান্য শিক্ষকদের মধ্যে এটিএম শহিদুল হক মজুমদার, মো. জাকারিয়া, ড. মো. সাইফুল আলম, ড. এম ফরহাদ হাওলাদার এবং সিফাত হোসাইন উপস্থিত ছিলেন বলে অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগপত্রে ড. মো. রফিকুল ইসলাম জানান, গত ১৬ই এপ্রিল বিভাগের জরুরি সভায় ১৩২ নম্বর ল্যাবরেটরি রুমের দায়িত্ব বন্টন নিয়ে বিভাগীয় প্রধানের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয়। এরই এক পর্যায়ে বিভাগীয় প্রধান তীব্র উত্তেজিত হয়ে “গেট আউট, গেট আউট” বলে আমার ডান হাতে প্রচণ্ডভাবে আঘাত করেন।

তিনি আরও বলেন, ‘এসময় উপস্থিত থাকা অন্যান্য সহকর্মীরা বিভাগীয় প্রধানকে থামিয়ে দিলে পরক্ষণেই আবার উত্তেজিত হয়ে আমাকে আক্রমণ করতে তেড়ে আসেন তিনি। পরে অনেক ধস্তাধস্তি করে সহকর্মীরা আবারও তাকে থামিয়ে দেন।’

অভিযোগপত্রে ‘বিভাগীয় প্রধান’ কর্তৃক লাঞ্ছনার অভিযোগ করা হলেও কোনও ব্যক্তির নাম উল্লেখ করেননি তিনি।

এ ব্যাপারে পেট্রোলিয়াম অ্যান্ড মাইনিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান ড. মো. শফিকুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘বিভাগের একটা সামান্য ঘটনাকে বাজেভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। বিভাগের মিটিংয়ের এ বিষয়টি বাইরে বলার মতো এমন কিছু ঘটেনি।’ তবে এ বিষয়ে উপাচার্য মহোদয় অবগত আছেন বলে জানান তিনি।

তবে ড. মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বিভাগের একটা ল্যাব-রুমে গুরুত্বপূর্ণ প্রজেক্টের কাজ চলছে। আর সে রুমটার মূল্যবান জিনিসপত্র অভিযুক্ত শিক্ষক কুক্ষিগত করতে চাইছেন। তাতে বাঁধা দেওয়ার এ ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছেন তিনি।’

Sharing is caring!

Loading...
Open