ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্তে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা

কানাইঘাট প্রতিনিধি::     সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার রাজাগঞ্জ ইউপির ৬নং ওয়ার্ড সদস্য মিনহাজ উদ্দিনের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর দায়ের করা বিভিন্ন প্রকল্পের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শীর্ষেন্দু পুরকায়স্থ।

আজ রোববার (০৮ই এপ্রিল) সকাল ১১টায় তিনি সরেজমিনে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের অতি দরিদ্র কর্মসূচীর আওতায় ওয়ার্ডের সিছরাউলী কালর্ভাট হইতে আটলারপাহাড় জামে মসজিদ পর্যন্ত রাস্তা, একই অর্থ বছরে টিআর প্রকল্পের আওতায় ভেখভেখি হইতে সরিষার খাল পর্যন্ত রাস্তা, টি.আর. ক্রমিক নং-৪২ প্রকল্পের খালপার পূর্ব মসজিদ পর্যন্ত ঈদগাহ রাস্তা ও খালপার গ্রামের সুরমা ডাইক হইতে দারুস সুন্নাহ সুলতানিয়া মাদ্রাসার রাস্তার কাজ তদন্ত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২১শে মার্চ এলাকাবাসীর পক্ষে খালপার গ্রামের মৃত আনফর আলীর পুত্র লুৎফুর রহমান ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে প্রকল্পের বরাদ্ধকৃত টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তানিয়া সুলতানা বরাবরে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। এরই প্রেক্ষিতে অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে ইউপি সদস্য মিনহাজ উদ্দিনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

অভিযোগের তদন্তের দায়িত্ব প্রাপ্ত উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শীর্ষেন্দু পুরকায়স্থ বলেন, সরেজমিন তদন্ত করেছি। ১৬-১৭ অর্থ বছরের কাজ হওয়ায় কিছুটা গত বর্ষা মৌসুমে নষ্ট হয়ে গেছে এবং সিছরাউলী কালর্ভাট হতে আটলারপাহাড় জামে মসজিদ পর্যন্ত রাস্তার প্রকল্পের মাটি ভরাটের আংশিক কাজ বিশেষ কারনে হয়নি বলে দেখা গেছে। অবশিষ্ট কাজ শেষ করার জন্য ইউপি সদস্যকে বলা হয়েছে এবং তা সম্পন্ন না হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open