“দক্ষিণ সুরমার মাসুক ও বাবুলের খুনীদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন”

সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বরইকান্দিতে সংঘর্ষ চলাকালে প্রতিপক্ষ পেশাদার খুনি আলফু ও তার বহিরাগত বাহিনীর গুলিতে নিহত মাসুক মিয়া ও বাবুল আহমদের খুনীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১১ টায় সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে বিশাল মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

বরইকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম হোসেনের সভাপতিত্বে এবং যুবনেতা আব্দুস সালাম ও আলী আব্বাসের যৌথ পরিচালনায় বরইকান্দি এলাকাবাসী আয়োজিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বিশিষ্ট সালিশ ব্যক্তিত্ব পাখি মিয়া, লিয়াকত মিয়া, গোলাম আলী, রেদওয়ান মিয়া, মুরব্বী হাজী সত্তার মিয়া, গৌছ মিয়া, হেলাল আহমদ, সাংবাদিক তাজুল ইসলাম বাঙালি, সিলেট মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতা সিদ্দিকী, প্রচার সম্পাদক শামীম মজুমদার, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য নাহিদা আক্তার চৌধুরী, সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবিব মঈন, জাতীয় পার্টির নেতা জিয়াউল ইসলাম, জাগো সিলেট আন্দোলনের সভাপতি আলাউদ্দিন আলো, রোটারিয়ান রেবেকা জাহান রোজী, খাজাঞ্চি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লিয়াকত পীর, দক্ষিণ সুরমা যুব কল্যাণ পরিষদের সিনিয়র সহ সভাপতি নূর মিয়া, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক সারওয়ার আলম মিথুন, সিলেট জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সদস্য মাসুক আহমদ, সিলেট জেলা অটোরিক্সা ২০৯৭ শাখার সভাপতি মতছির আলী।

মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বৈশাখী যুব কল্যাণ পরিষদের কার্যকরী সদস্য কাজী জসিম উদ্দিন, আমির আলী, মামুন খান, হাজী নাজিম উদ্দিন, আব্দুল কাদির লজু, আহমদ হোসেন, হাজী ফখরুল ইসলাম, কুতুব মিয়া, রেকুয়ান মিয়া, আকছার আহমদ, সাধন আলী, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি জাহেদ আহমদ, গোলাপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক আহমদ,ইমরানুল ইসলাম জাসিম, সোহেল মাহমুদ, মখলিছ খান, নিহত মাসুক মিয়া মামতো ভাই মাসুদ আহমদ কবির, বাবুল আহমদের ভাই সেবুল আহমদ, শামীম আহমদ, বৈশাখী যুব কল্যাণ পরিষদের সভাপতি সাংবাদিক সাহেদ আহমদ শান্ত, কাওছার হোসেন রকি, হোসেন খান ইমাদ, যুবলীগ নেতা শরীফ আহমদ প্রমুখ।

এছাড়াও বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ দক্ষিণ সুরমা উপজেলার বিভিন্ন স্তরের জনগণ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বরইকান্দি একটি শান্তিপ্রিয় এলাকা। এই এলাকার একটি ঐতিহ্য রয়েছে। এলাকায় কোন বিরোধ দেখা দিলে স্থানীয় মুরব্বীগণ সমাধান করে দেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য গত ৬ মার্চ পেশাদার খুনি আলফু ও তার বহিরাগত বাহিনী বরইকান্দিতে ঘুমন্ত মানুষের উপর হামলা ও গুলি করে দু’জনকে নৃশংস ভাবে হত্যা করে। এ ধরনে হত্যাকান্ড বরইকান্দির ঐতিহ্যকে কলংকিত করেছে।

বক্তারা খুনি আলফু ও তার বাহিনীকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির আওতায় আনার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবী জানান। অন্যথায় শান্তিপূর্ণ এলাকাবাসী কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবে।–বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open