নবীগঞ্জে আনন্দ নিকেতনের দুই দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

দেশের সংস্কৃতিকে ধ্বংস করার জন্য পাকিস্তানিরা একসময় দেশের জাতীয় সংগীত বন্ধ করে দিয়েছিল,কিন্তু তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি
মুক্ত সংস্কৃতি চর্চায় অনন্য ভুমিকা রাখছে আনন্দ নিকেতন
– ডিআইজি কামরুল আহসান

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ এখন যৌবন যার যুদ্ধে যাবার তার শ্রেষ্ঠ সময়.. এই শ্লোগান নিয়ে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে শুরু হল ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক সংগঠন আনন্দ নিকেতন এর ১৮ তম প্রতিষ্টা বার্ষিকী উপলক্ষে দু’দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব। গতকাল শনিবার দুপুরে সাংস্কৃতিক উৎসবের উদ্বোধন করেন পুলিশের সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ কামরুল আহসান (বিপিএম)। উদ্বোধনী ভাষণে ডিআইজি, কামরুল আহসান বলেছেন, উপজেলা পর্যায়ের একটি সাংস্কৃতিক সংগঠনের এমন নজরকাড়া আয়োজন এবং আপামর মানুষের উপস্থিতি মুগ্ধ করল। আনন্দ নিকেতনের আনন্দধ্বনি পৌঁছে গেছে দেশ দেশান্তরে। এমনতর নান্দনিক চর্চায় দেশব্যাপী দেশজ সংস্কৃতির বিকাশ ঘটবে বলেই বিশ্বাস করি।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের সংস্কৃতিকে ধ্বংস করার জন্য পাকিস্তানিরা একসময় দেশের জাতীয় সংগীত বন্ধ করে দিয়েছিল। কিন্ত তা বাস্তবায়ন করতে পারেনি। আজ দেশের সংস্কৃতিকে লালন করতে নবীগঞ্জের মতো একটি মফস্বল এলাকায় আনন্দ নিকেতন নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আশা করি এ সংস্কৃতি চর্চা বর্তমান সরকারের ২০২১ ভিষন বাস্তবায়ন করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

আনন্দ নিকেতনের ১৮বছর পূর্তির প্রীতিসম্মিলনী শুভেচ্ছাজ্ঞাপন পর্বে আনন্দ নিকেতনের আহবায়ক উজ্জ্বল দাশের পরিচলনায় বক্তব্য রাখেন, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌহিদ-বিন হাসান, পৌরসভার সাবেক মেয়র অধ্যপক তোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) আতাউল গনি ওসমানী, এডিশনাল এসপি আ.স.ম শামসুল, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আব্দুর রউপ, পৌর মেয়র ছাবির আহমেদ চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ইমদাদুর রহমান মুকুল, সাধারন সম্পাদক সাইফুল জাহান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ মিলু, যুক্তরাজ্য প্রবাসী কমিউনিটি সংগঠক মঈনুল আমীন বুলবুল, বঙ্গবন্ধূ ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ নাজরা চৌধুরী, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্মেলেন্দু দাশ রানা, যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক লোকমান আহমেদ খাঁন, শিক্ষক সমিতির সভাপতি শামীম আহমেদ, পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ইকবাল আহমেদ বেলাল প্রমুখ। অনুষ্ঠানের বিভিন্ন পর্বে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আমিনুর রহমান চৌধুরী সুমন, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক উত্তম কুমার হিমেল, শিক্ষক সমিতির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রুবেল মিয়া, আনন্দ নিকেতনের সাবেক সভাপতি তনুজ রায়, প্রনব দেব, সাবেক সাধারন সম্পাদক দিপংকর ভট্টাচার্য্য দেবুল, ওয়াহিদুজ্জামান জুয়েল, নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারন সম্পাদক সলিল বরণ দাশ, দৈনিক বিবিয়ানা বার্তা সম্পাদক মতিউর রহমান মুন্না সাহেদুর রহমান, রুয়েল আহমেদ প্রমুখ। সবশেষে নবীগঞ্জ শহরে বিশাল আনন্দ শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ন সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করে।

আজ উৎসবের ২য় দিনে আনন্দ নিকেতন ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও আলোচনা অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এম.পি.। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক আয়োজনে অংশ নেবে আনন্দ নিকেতন শিক্ষার্থীরা, সিলেটের নগরনাট, বাংলা গানেরদল বাউলা ও জলের গান । আনন্দ নিকেতনের দু’দিনব্যাপী উৎসব ঘিরে সেজেছে শহর নবীগঞ্জ।

Sharing is caring!

Loading...
Open