জাতীয় বিতর্কে রানার্স আপ জগন্নাথপুর ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের বিতার্কিক দল দেশের ৮৮০টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিতার্কিক দলের মধ্যে রার্নাস আপ হয়েছে। প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া ১৭ হাজার ৬৬০ জন বিতার্কিকদের মধ্যে শ্রেষ্ট বক্তা নির্বাচিত হয়েছে ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের বিতার্কিক দলের নেতা শরীফা জাহান। শুক্রবার রাজধানী ঢাকার তেজগাওস্থ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেন (বি.এফ.ডি.সি)’ মিলনায়তনে এই জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা ‘বিতর্ক বিকাশ’-এর গ্র্যান্ড ফাইনাল অনুষ্ঠিত হয়।

শিক্ষা ব্যবস্থার সংস্কারই পারে দুর্নীতিমুক্ত দেশ গড়তে’ বিষয়ের উপর বিতর্কে প্রতিযোগিতারা বিভিন্ন পর্যায়ের দুর্নীতির চিত্র তুলে ধরেন। প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টিও এতে তুলে ধরা হয়। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে প্রতিযোগিতার চ্যাম্পিয়ান ও রানার আপ দলের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। বেসরকারী টেলিভিশন এটিএন বাংলা পুরো অনুষ্ঠানটি সরাসরি সম্প্রচার করে।

ব্র্যাক,এটিএন বাংলা ও ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত ৯ম জাতীয় বিতর্ক বিকাশ প্রতিযোগিতার গ্র্যান্ড ফাইনালে সিলেট বিভাগ চ্যাম্পিয়ন জগন্নাথপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় মুখোমুখি হয় বরিশাল বিভাগ চ্যাম্পিয়ন বাবুগঞ্জ উপজেলার রাশেদ খান মেনন স্কুল এন্ড কলেজের। ২০১৬ সালে শুরু হওয়া এই বিতর্ক প্রতিযোগিতায় উপজেলা, জেলা ও বিভাগ চ্যাম্পিয়ন হয়ে গত ২০ আগষ্ট ২০১৭ সালে ঢাকায় অনুষ্ঠিত সেমিফাইনালে রাজশাহী বিভাগকে হারিয়ে গ্র্যান্ড ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়। গ্র্যান্ড ফাইনালে ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের অংশগ্রহণকারী বিতার্কিকরা হল নবম শ্রেণীর বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী শরিফা জাহান, বুশরা বেগম, খাদিজাতুল কুবরা, সানিয়া বিনতে মরিয়ম ও সাঈমা তালুকদার জেলি।

সেমিফাইনালে অংশগ্রহণকারী বিতার্কিকরা হল তাহশিন রহমান ঋতু, সৈয়দ সালমান আহমদ, মাহফুজুল ইসলাম আহাদ, শরিফা জাহান, বুশরা বেগম।
ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমদ চৌধুরী কিরনের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের সচিব মোঃ সোহরাব হোসাইন, ব্র্যাক শিক্ষা কর্মসূচির পরিচালক ড.শফিকুল ইসলাম এবং এটিএন বাংলার উপদেষ্টা নওয়াজীশ আলী খান।
৯ম জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতা সারাদেশের ৮৮০টি স্কুলের ১৭ হাজার ৬০০ বিতার্কি অংশগ্রহণ করে।

গ্র্যান্ড ফাইনাল প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার হিসেবে ট্রফি, ক্রেষ্ট ও সার্টিফিকেটসহ চ্যাম্পিয়ন দল কে নগদ ৩০ হাজার এবং রানার আপ দলকে ২৫ হাজার টাকা ও শ্রেষ্ট বিতার্কি ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী শরিফা জাহান কে ৫ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।
এসময় বিতাকির্কদের সাথে উপস্থিত ছিলেন- ইসহাকপুর পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বদরুল ইসলাম ও সদস্য মিয়া মোহাম্মদ সোহেল এবং সহকারী শিক্ষক মাওলানা জালাল উদ্দিন। রানার আপ হওয়ার পর বিতার্কিকদের বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে করে ঢাকা থেকে সিলেটে নিয়ে আসা হয়। সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জগন্নাথপুর বাসীর পক্ষ থেকে বিতার্কিক দলকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

Sharing is caring!

Loading...
Open