বিশ্বনাথে শিশুকে পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি::                                          সিলেটের বিশ্বনাথে পাঁচ বছরের শিশু পাশবিক নির্যাতন চেষ্টার শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত বুধবার উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের বাইশঘর গ্রামে এ ঘটনা ঘটলেও গত রোববার বিষয়টি প্রকাশ পায়। এরপর থেকে আইনের আশ্রয় না নেয়ার জন্য শিশুটির হতদরিদ্র পিতাকে একটি প্রভাবশালী চক্র হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

অবশেষে গতকাল রোববার (১৮ই ফেব্রুয়ারি) রাতে শিশুর পিতা বাদী হয়ে উপজেলার চান্দভরাং গ্রামের ছুরুক আলীর ছেলে মিজানকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৩ (তাং ১৮.০২.১৮ইং)।

শিশুর পিতা সাংবাদিকদের জানান, গত বুধবার দুপুরে তার কন্যা শিশু বাড়ির উঠানে খেলা করছিল। এসময় পাশের ঘরের বিল্ডিং-এ কাজ করতে আসা উপজেলার চান্দভরাং গ্রামের ছুরুক আলীর ছেলে মিজান (২০) চানাচুর দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে দোতলায় ডেকে নেয় শিশুকে। সেখানে তার উপর পাশবিক নির্যাতনের চেষ্টা চালায় সে। পরে অন্যদের উপস্থিতি টের পেয়ে তাকে আহত অবস্থায় নীচে নামিয়ে দেয়। ঘটনার পরদিন শিশুর মুখ থেকে বিষয়টি শুনে তাকে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান পরিবারের লোকজন।

ডাক্তার রিপোর্টে পাশবিক নির্যাতন চেষ্টার আলামত রয়েছে বলে উল্লেখ করলে তারা বিচারপ্রার্থী হন। এসময় এলাকার একটি প্রভাবশালী মহল তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে আইনের আশ্রয় না নিতে হুমকি দেয়।

তিনি আরও জানান, ‘ঘটনার দিন আমি বাড়িতে ছিলাম না। আমার অসুস্থ স্ত্রী ঘরে ছিলেন। এসময় আমার শিশু কন্যাকে ডেকে নেয় মিজান। চানাচুরের প্রলোভন দিয়ে তার উপর পাশবিক নির্যাতনের চেষ্টা চালিয়ে তাকে আহত করে সে। এর বিচার না চাইতে অনেকেই আমাকে হুমকি দিয়েছে। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই। এ ঘটনায় রোববার রাতে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করি।’

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত মিজানের মুটো ফোনে যোগাযোগের চেষ্ঠা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, ভিকটিমের পরিবারের অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। তবে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে তিনি জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open