লোভাছড়া পাথর কোয়ারি রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা

কানাইঘাটের লোভাছড়া পাথর কোয়ারিকে অসাধু ব্যবসায়ীদের হাত থেকে মুক্ত এবং এর পরিবেশ রক্ষায় সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতা কামনা করেছেন সাতবাঁক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইজারাদার মোস্তাক আহমদ পলাশ। সোমবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সহযোগিতা কামনা করেন।
লিখিত বক্তব্যে পলাশ বলেন, ২০১৬ সালের ১৫ই মার্চ সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে তিনি ৪ কোটি ৩ হাজার ১ শত ১০ টাকা ট্রেজারী চালানের মাধ্যমে জমা প্রদান করেন। এরপর পাথর মহালের সীমানা চিহ্নিত ও অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ চেয়ে সচিব খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয় ও পরিচালক খনিজ সম্পদ উন্নয়ন ব্যুরোকে লিখিত অভিযোগ দেন। কোনো প্রতিকার না পেয়ে পুনরায় আবারও জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিবের সাথে দেখা করে অনুরোধ করেন। এরই প্রেক্ষিতে সচিব একটি উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন কমিটি গঠন করে সিলেট বিভাগীয় কমিশনারকে আবেদনের বিষয়টি নিষ্পত্তি করার অনুরোধ করেন। কিন্তু এরপরও তিনি কোনো প্রতিকার না পেয়ে হাইকোর্টে ক্ষতিপুরণসহ সমুহ টাকা ফেরত প্রদান অথবা বিদ্ধমান সীমানা জটিলতার নিষ্পত্তি করণের জন্য রিট পিটিশন দাখিল করেন।

তিনি বলেন, পাথর মহালের সীমানা নির্ধারণ না হওয়াতে স্থানীয় কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ীরা অবৈধ দখলের মাধ্যমে ইজারার শর্ত অমান্য করে পাথর উত্তোলন করে আসছে। এখানে কোনটি সরকারের খাস ভূমি আর কোনটি নো ম্যান্স ল্যান্ড আর কোন অংশটি ব্যক্তি মালিকানাধীন এবং কোন অংশ পাথর মহালের গেজেটভুক্ত তা সু-স্পষ্ট না হওয়াতে বৈধভাবে তিনি পাথর উত্তোলন করতে পারছেন না। যার ফলে তিনি প্রতিদিন আর্থিক ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছেন। এছাড়া গেজেটভুক্ত পাথর কোয়ারির বড়গ্রাম মৌজাটি স্থানীয় বিজিবি কর্তৃপক্ষ নো ম্যান্স ল্যান্ড বলে চিহ্নিত করেছেন।

তিনি আরো বলেন, এই এলাকার হাজার হাজার শ্রমিক পাথর উত্তোলন করে জিবীকা নির্বাহ করে থাকেন। কিন্তু গত কয়েকদিন যাবৎ স্থানীয় কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা ইজারার সকল শর্ত লঙ্গন করে পরিবেশ বিনষ্টকারী সকল যন্ত্রপাতি স্থাপন করে বড় বড় গর্ত করে পাথর উত্তোলন করছে। এ কারণে বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। গণমাধ্যমে এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে স্থানীয় প্রশাসন মাঝে মধ্যে দু’একটি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। কিন্তু যার ফলাফল শূন্য। কেননা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার দুরে এবং অনুন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার কারণে সফলভাবে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা যায় না। তিনি বলেন, লোভাছড়া পাথর কোয়ারিকে পরিবেশ বিনষ্টকারীদের হাত থেকে রক্ষায় পরিবেশ অধিদপ্তর, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ স্থানীয় প্রশাসনকে এগিয়ে আসতে তিনি আবেদন দিয়েছেন। তিনি বলেন, সার্বিক পরিস্থিতি উন্নতির স্বার্থে একজন বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট এর নের্তৃত্বে অস্থায়ী ক্যাম্প গঠন করে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার জন্য তিনি জেলা প্রশাসক ও কানাইঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে লিখিতভাবে অনুরোধ করেছেন। সংবাদ সম্মেলনে তিনি লোভাছড়ার ঐতিহ্য ও পরিবেশ রক্ষায় সংশ্লিষ্ট মহলের সুদৃষ্টি কামনা করেন। – বিজ্ঞপ্তি

Sharing is caring!

Loading...
Open