বাংলা খুবই আদরণীয় ভাষা তবে… — মেঘনা

সুরমা টাইমস ডেস্ক::        প্রায় বছর দশেক পর ফের সিনেমায় অভিনয় করতে যাচ্ছেন মেঘনা নাইডু। এবার বাংলা সিনেমা সিতারা-তে যৌনকর্মীর ভূমিকায় দেখা যাবে তাকে।

কাহিনীর পটভূমি বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত। মেঘনার চরিত্রটির নাম লোখোনা। সীমান্ত এলাকায় চোরাচালানির কাজে সহযোগিতাও করে থাকে লোখোনা।

মেঘনা এর আগে বলিউডি বি-গ্রেডের বেশ কিছু ছবিতে কাজ করেছেন। সে সূত্রে খুল্লাম-খুল্লা ধরনের চরিত্রে নিজেকে বেশ ভালোভাবেই জাহির করেছেন। বলিউডে তার ডেব্যু ফিল্ম ছিল হাবাস। তবে সেখানে সুবিধা করতে না পেরে দক্ষিণি সিনেমার দিকে মন দেন। কন্নর ভাষায় তৈরি দুটি ছবিতেও অভিনয় করেছেন মেঘনা।

বাংলা ভাষার ফিল্মে কাজ করতে যাওয়ার অভিজ্ঞতা প্রসঙ্গে ৩৫ বছর বয়সী নৃত্যশিল্পী-অভিনেত্রী মেঘনা বলেন, বাংলা খুবই আদরণীয় ভাষা তবে এই ভাষায় কথা বলা একটু মুশকিল-ই। ছবিতে আমি রাইমা সেন ও জাহিদ হাসানের সঙ্গে কাজ করবো।

মেঘনা সিনেমা ছাড়াও কালারস টিভিতে ফিয়ার ফ্যাক্টর: খাতরোকো খিলারি, জী টিভির যোধা আকবর, কালারস টিভির ড্যান্সিং কুইন, সনি এন্টারটেইনমেন্টের আদালতসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে পারফর্ম করেন। ভরত নাট্যম জানা মেঘনার প্রথম সিনেমা হচ্ছে তেলেগু ভাষার প্রেমা সাক্ষী (১৯৯৯) সালে। তবে লতা মুঙ্গেশকরের ঘোরা রসম লাগতা হ্যায় গানের রিমিক্স কালিয়োঁ কা চামান-এর মিউজিক ভিডিওতে পারফর্ম করে শোবিজে প্রথম পরিচিতি পান তিনি।

‘সিতারা’ ছবিতে ফজলুর রহমান বাবুর স্ত্রী আর জাহিদ হাসানের প্রেমিকার চরিত্রে অভিনয় করছেন সুচিত্রা সেনের নাতনি রাইমা সেন।

পশ্চিম বাংলা তথা ভারতের জনপ্রিয় সাহিত্যিক আবুল বাশারের ‘ভোরের প্রসূতি’ উপন্যাস অবলম্বনে ছবির চিত্রনাট্য তৈরি হয়েছে। আশীষ রায় পরিচালিত সিতারা বাংলা ও তেলেগু ভাষায় মুক্তি পাবে। গত ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে সীমান্তবর্তী কুচবিহারে শুটিং চলছে ছবিটির। মাসখানেক সেখানে দৃশ্যায়ন শেষে দিনাজপুরের সীমান্তবর্তী এলাকায় ছবির বাকি দৃশ্যায়ন শুরু হবে। প্রসঙ্গত, ইমন সাহার সংগীতায়োজনে ‘সিতারা’র একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ফজলুর রহমান বাবু। সূত্র:- জনসত্তা.কম, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, উইকিপিডিয়া

Sharing is caring!

Loading...
Open