সিলেটে স্মরণীয় অভিষেক চায় বাংলাদেশ

সুরমা টাইমস ডেস্ক::
সিলেটবাসী নিজেদের মাঠে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের স্বাদ পেয়েছে আরও চার বছর আগে। ২০১৪ আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল নয়নাভিরাম সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের। দেশের প্রথম গ্রিন গ্যালারির স্টেডিয়ামে ছয়টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ হয়েছে। কিন্তু সেখানে এতদিন পা পড়েনি বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের।

আজ সিলেট স্টেডিয়ামে অভিষেক হবে টাইগার বাহিনীর। এ মাঠেই আজ দ্বিতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে খেলতে নামবে বাংলাদেশ। পুণ্যভূমি সিলেটের মাটিতে শুরুটা জয়ের আবিরে রাঙাতে চায় বাংলাদেশ। অবশ্য ১-০ তে পিছিয়ে থাকায় সিরিজ হার এড়াতে সিলেটে টাইগারদের সামনে জয়ের ভিন্ন রাস্তা নেই। মিরপুরে ছয় উইকেটে হারলেও আজ জয়ের জন্যই মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

সিলেটে বাংলাদেশের অভিষেক রাঙাতে হলে তিন বিভাগেই ভালো করতে হবে বলে জানিয়েছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে টসও।

সিলেটে অভিষেক স্মরণীয় করা সম্পর্কে জানতে চাইলে গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘আসলে এটা নির্ভর করছে উইকেট আমরা কেমন পাচ্ছি। উইকেটের কন্ডিশনটা আমরা বিবেচনা করব। তার ওপর টসটা গুরুত্বপূর্ণ। আর টি-টোয়েন্টিতে আমার মনে হয়, প্রত্যেকটি বিভাগেই আপনাকে ভালো করতে হবে। আপনি ব্যাটিং করেন আগে বা বোলিং করেন। আপনি যদি আপনার স্কিল বাস্তবায়ন করতে পারেন, তাহলে এটাই যথেষ্ট। কন্ডিশন যদি একটু ভিন্ন থাকে তাহলে টসের ইস্যুতে বিবেচনার বিষয় থাকে।’

প্রথম ম্যাচে হারের কারণে আজ ঘুরে দাঁড়ানো প্রয়োজন বাংলাদেশ দলের। আজ ম্যাচ জিততে আশাবাদী মাহমুদউল্লাহ। পরিকল্পনা কাজে লাগাতে পারলে ভালো কিছুই আশা করছেন অধিনায়ক। গতকাল তিনি বলেছেন, ‘আপাতত এই ম্যাচ নিয়েই আমরা ভাবছি। আমার মনে হয়, আমাদের ঘুরে দাঁড়ানোর যে তাগিদটা ওটা সবার মাথায় কাজ করছে। আশা করি, আমরা কিছু একটা মাঠে করে দেখাতে পারব। বাংলাদেশ দলকে কিছু দেওয়ার জন্য বাড়তি কিছু করা। এই জিনিসগুলো নিয়ে আমরা চেষ্টা করছি। এবং আশা করছি, আমরা ভালো একটা শো দেখাতে পারব।’

আগামী মাসেই আবার শ্রীলঙ্কার মুখোমুখি হতে হবে বাংলাদেশকে। মার্চে শ্রীলঙ্কার মাটিতে ত্রিদেশীয় টি- টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে টাইগাররা। ওই সিরিজের আগে আজই শেষ ম্যাচ। যা থেকে ভালো কিছু নিয়ে শ্রীলঙ্কা যেতে চায় বাংলাদেশ।

মাহমুদউল্লাহ বলেছেন, ‘সামনে যে টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আছে (নিদাহাস ট্রফি)। অবশ্যই এখান থেকে আমরা যেন ভালো কোনো কিছু নিয়ে ওই টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে যেতে পারি, এটাই এখন আমাদের মূল বিষয়।’

চোট কাটিয়ে উঠায় আজ তামিম ইকবালের খেলার সম্ভাবনাই বেশি। দলে আছেন সিলেটের ছেলে আবু জায়েদ রাহী। প্রথম ম্যাচে সুযোগ হয়নি ডানহাতি এ পেসারের। বিপিএলে খুলনা টাইটান্সের হয়ে দুর্দান্ত বোলিং করেছিলেন রাহী।

নিজ শহরের মাঠে রাহীর অভিষেকের সম্ভাবনা প্রসঙ্গে একটু কূটনৈতিক শোনালো মাহমুদউল্লাহকে। তিনি বলেন, ‘সত্যি বলতে আমরা এখনো এটা নিয়ে কাজ করছি। আমরা কিছুক্ষণ আগেই আসলাম, বিশেষ করে আমি। উইকেট ওভাবে দেখা হয়নি। আমরা উইকেট দেখব। এবং টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গেও কথা বলা হয়নি। বিবেচনার বিষয় আছে কিছু। ওই জিনিসগুলো চিন্তা করে আমরা সেরা একাদশ নির্বাচন করব। তারপরও এতটুকু বলতে পারি হয়তো বা সবারই কমবেশি খেলার সম্ভাবনা আছে।’

Sharing is caring!

Loading...
Open