নেতা ৫ তলায়, কর্মীরা রাজপথে ! (ভিডিও)



নিজস্ব প্রতিবেদক : পদ পেয়েছেন দায়িত্বশীল। গোটা জেলায় জাতীয়তাবাদী চেতনা ছড়িয়ে দিতে এই পদের মূল্য অনেক। আর সেই মূল্যবান পদে থেকে তিনি ছিলেন নিরালায় । কর্মীদের জন¯্রােত ও ঠলাতে পারেনি এই নেতাকে। বৃহস্পতিবার জাতীয়তাবাদী রাজনৈতিক ¯্রােতের ঢেউ গোটা নগরীতে আঁচর পড়লেও তিনি ছিলেন বহুতল বিশিষ্ট একটি ভবনের ৫ম তলায়। সেখান থেকেই নীচের দিকে থাকিয়ে উঁকি দিয়ে বিক্ষোব্ধ কর্মীদের পরখ করছিলেন।

এই রাজনৈতিক নেতার নাম আলী আহমদ। তিনি সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক। বৃহস্পতিবার মামলার রায়ে বিএনপি চেয়ারপার্সনের ৫ বছরের কারাদ-ের খবরে গোটা সিলেটের জাতীয়তাবাদী শক্তি ঘর ছেড়ে বেড়িয়ে আসে সিলেটের রাজপথে। জিন্দাবাজার পয়েন্টে ছাত্রদল নেতাকর্মীদেও সাথে নিয়ে প্রায় ৪০ মিনিট ব্যাপী মকসুদ ও লিটন ও সুমনের নেতৃত্বে এ সময় সরকার বিরোধী বিভিন্ন শ্লোগান চলে। জিন্দাবাজারে রাস্তা অবরোধ করে নেতাকর্মীরা এ সময় আওয়ামীনেতাদের বিভিন্ন ব্যানার ও পোস্টার ছিড়ে ফেলে। তাদের অতর্কিত অবস্থানের কাছে পুলিশ ছিলো নিরুপায়। জিন্দাবাজার পয়েন্টে এ সময় ৫ পুলিশ সদস্য দায়িত্বে থাকলেও তারা পরিস্থিতিতে ঠাঁয় দাড়িয়ে থাকে।

কিন্তু জিন্দাবাজারের ব্লু ওয়াটারে নিজ অফিসে অবস্থান করেন জেলা বিএনপির সম্পাদক আলী আহমদ। কিন্তু দলীয় কর্মীরা এই দুঃসময়েও নেতাকে পাশে পায়নি কর্মীরা। এ নিয়ে
কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ক্ষোভের বিষয়টি তুলে ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এনিয়ে চলছে তোলপাড়।

বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা প্রদানকে কেন্দ্র করে গোটা সিলেট নগরী উত্তপ্ত হয়ে উঠে। এ সময় বিকাল পৌনে ৫ টায় জেলা ছাত্রদলের জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি লিটন আহমদ , প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মকসুদ আহমদ মকসুদের নেতৃত্বে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মিছিল সহকারে এসে জিন্দাবাজার পয়েন্টে অবস্থান নেন। তারা সেখানে অবস্থান করে রাস্তা অবরোধ করেন।

এরপর বিকাল ৫ টার ৫ মিনিটে পুলিশ এসে ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। পুলিশ আসার পর ছাত্রদল নেতাকর্মীরা সটকে পড়েন।

সিলেট জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আলতাফ হোসেন সুমন সিলেট জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক ওলিউর রহমান, ফখরুল ইসলাম রুমেল সাবেক যুগ্ন সম্পাদক সিলেট মহানগর, এহতেশামুল হক সবুজ সাবেক সহ সাধারন সম্পাদক সিলেট মহানগর, ফরহাদ হোসেন সাবেক সহ সাধারন সম্পাদক সিলেট মহানগর, আজমল হোসেন তুহিন সাবেক সহ সাধারন সম্পাদক সিলেট মহানগর, এনামুল হোসেন সহ সাধারন সম্পাদক সিলেট জেলা, এনামুল হক সহ সাংগঠনিক সিলেট জেলা, আতাউর রহমান সহ সাংগঠনিক সিলেট জেলা, কবির আহমদ উজ্জল সহ সাংগঠনিক সিলেট জেলা, মাহমুদুর রহমান বাবর সহ সাংগঠনিক সিলেট জেলা, রাসেল আহমদ সাবেক সহ সাংগঠনিক সিলেট মহানগর, আরিফুর রহমান টিপু সহ সাংগঠনিক সিলেট জেলা, ফরহাদ হোসেন ময়না মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক সিলেট জেলা, এম এ দিলোয়ার সাবেক সহ ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক সিলেট মমহানগর, শাহেল শাহ সিনিয়র সদস্য সিলেট জেলা, মিনার হোসেন লিটন সিনিয়র সদস্য সিলেট জেলা, বদরুল আলম সিনিয়র সদস্য সিলেট জেলা, রায়হান আহমদ সিনিয়র সদস্য সিলেট জেলা,আফজল হোসেন সিনিয়র সদস্য সিলেট জেলা, হুমায়ুন রশীদ সহ কৃষি ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক সিলেট জেলা, আবু বক্কর সিদ্দিক সহ যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক সিলেট জেলা, শাহেদ আহমদ যুগ্ন আহবায়ক গোয়াইনঘাট উপজেলা ছাত্রদল, সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের সদস্যবৃন্দ যথাক্রমে মেহেদি হাসান সাজাই, কয়েছ আহমদ (১), কয়েছ আহমদ (২), আবু সায়েম সাকিব, রকিব আলি, এমাদ উদ্দিন, রেদোয়ান, সজিব আহমদ, ফয়সল আহমদ, মিজান আহমদ, আবু রায়হান রাজু, জাকির হোসেন, তাজুল ইসলাম, খালেদুল ইসলাম সানি, হোসাইন আহমদ, সোলেমান আহমদ সালমান, কামরুল ইসলাম,আলী আহমদ রনি, সেলিম আহমদ আসিফ, সারোয়ার হোসেন বাদল,আলী আহমদ জুয়েল, রাজ খাঁন ইমন, অলিউর রহমান ফেরদৌস,মামুন আহমদ, আব্দুল ওয়াহিদ, শরীফ আহমদ, সাজন আহমদ, খালেদুল ইসলাম মনি,, তালহা আহমদ, তামিম আহমদ,রাব্বি আহমদ রবিন,আমিনুল ইসলাম।

Sharing is caring!

Loading...
Open