বন্দর ও জিন্দাবাজারে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষে আহত ১৫, আটক ৪, পুলিশের ১৫৬ রাইন্ড গুলি

সুরমা টাইমস ডেস্কঃ দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজার রায় ঘোষণার পর সিলেটে বিএনপি-আওয়ামী লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ এবং ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনায় ১৫ জন আহত হয়েছেন। এসময় বিএনপির চার নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে নগরীর আদালত চত্বর থেকে এ সংঘর্ষের সূত্রপাত হয়। একপর্যায়ে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে নগরের বিভিন্ন এলাকায়।

বিকেলে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) মুহম্মদ আব্দুল বলেন, দুপুরে দুই ঘণ্টাব্যাপী ত্রিমুখী সংঘর্ষের ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১শ’ ৫৫ রাউন্ড গুলি করা হয়েছে। এছাড়া বিএনপির চার নেতাকর্মীকে আটক করা হয়েছে।

এর আগে, রায় ঘোষণার পরপরই আদালত চত্তরে থাকা বিএনপি ও স্বেচ্ছাসেবক নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছোঁড়ে। এসময় পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় বিএনপির নেতাকর্মীরা একাধিক গ্রুপে ভাগ হয়ে আদালত চত্বর থেকে সিটি পয়েন্ট, কোর্ট পয়েন্ট, বন্দরবাজার, জেলরোড, মহাজনপট্রি ও লালদিঘীরপাড় এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। এসময় সংঘর্ষ নগরের বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে।

পরে নগরীর বন্দর পয়েন্টে এলাকায়ও ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায়র ঘটনা ঘটে। এদিকে আদালতের বিপরীতে অবস্থান নেওয়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা এগিয়ে গেলে বিএনপি-আওয়ামী লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ বেধে যায়। এসময় ককটেল ও গুলির শব্দও পাওয়া যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ সদস্যরা গুলি, টিয়ারশেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষে পুলিশ, সাংবাদিকসহ বিএনপি-আওয়ামী লীগের অন্তত ১৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে জানায় পুলিশ।

এর জের ধরে বিকেল পৌনে টার দিকে নগরীর চৌহাট্টার দিক থেকে ছাত্রদলের একটি মিছিল জিন্দাবাজার পয়েন্টে এসে সড়ক অবরোধ করে মিছিল করতে থাকে। প্রায় ২০ মিনিটের মতো সেখানে অবরোধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ ছাত্রদল কর্মীরা। এসময় পুরো সড়ক জোরে আতঙ্ক বিরাজ করে। সড়ক দিয়ে চলাচলকারীরা আতঙ্কিত হয়ে দিকবেদিক ছুটাছুটি করতে থাকেন। বিকেল ৫টা ৫ মিনিটে একদল পুলিশ এসে ছাত্রদলকর্মী-সমর্থকদের ধাওয়া দিলে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ৫ বছর ও দলটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দুপুরে ঢাকার বকশীবাজার কারা অধিদপ্তরের প্যারেড গ্রাউন্ডে স্থাপিত বিশেষ আদালতে বিশেষ জজ ৫ এর বিচারক ড. মো. আখতারুজ্জামান

Sharing is caring!

Loading...
Open