ছাতকে মাদক মামলায় ছেলেকে ফাঁসানোর অভিযোগ করলেন পিতা

সুরমা টাইমস ডেস্ক:: সিলেটের সুনামগঞ্জ জেলার ছাতক উপজেলার গোবিন্দগঞ্জের দিঘলী চাকলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ব্যবসায়ী জাহেদ মিয়াকে ‘ষড়যন্ত্রমূলকভাবে’ মাদক মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই ব্যবসায়ীর পিতা আব্দুল আমিন।

আজ শনিবার সিলেট প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেছেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, তার ছেলে জাহেদ মিয়া একজন ব্যবসায়ী। গোবিন্দগঞ্জ বাজারে স্কুলরোডে ‘আমিন ফ্যাশন’ নামে জাহেদের একটি দোকান রয়েছে। প্রতিদিন নিজ গ্রামের বাড়ী থেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াতের মধ্যেই সীমাবদ্ধ জাহেদের যাতায়াত।

গত ২৭শে জানুয়ারি সিলেট শহরতলীর জালালাবাদ ইউনিয়নের হেংলাকান্দি গ্রামে সুরমাপারে থাকা নৌকা থেকে সিনথেটিকের বস্তায় প্রায় ৯ শত ৪০টি মদের বোতল উদ্ধার করা হয়। যা ছাতক উপজেলার দিঘলী চাকলপাড়া গ্রাম থেকে দূরত্ব আনুমানিক ১৫ কিলোমিটার। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সুনামগঞ্জ জেলা পরিদর্শক মো. শোয়েব আহমদ চৌধুরীর দায়ের করা মামলায় উল্লেখ করা হয়- ঘটনার তারিখে দিঘলী চাকলপাড়া গ্রামে জাহেদের নিজ শয়নক্ষ থেকে বোতলগুলো উদ্ধার করা হয়েছে। আরো উল্লেখ করা হয়, বোতল উদ্ধার করা হলেও জাহেদকে পাওয়া যায়নি।

তিনি বলেন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্য এমনকি গ্রামের একজন মানুষও অভিযানের খবর এবং মাদকদ্রব্য উদ্ধারের বিষয়টি অবগত নয়। কিন্তু অত্যন্ত সুকৌশলে জাহেদকে এ মামলায় জড়ানো হয়।
তিনি বলেন, মাদকদ্রব্য উদ্ধারের স্থান অন্যত্র হলেও ঘটনা আড়াল করতে সুকৌশলে জাহেদকে জড়িয়ে পারিবারিকভাবে হেয় করা হয়েছে।

প্রকৃত সত্যকে আড়াল করে একটি চক্র জাহেদ ও তার পরিবারকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হয়রানী করতে মরিয়া।

এরই ধারাবাহিকতায় তার ছেলে জাহেদকে ‘ষড়যন্ত্রমূলকভাবে’ মাদক উদ্ধারের নাটক মঞ্চস্থ করে এই চক্রটি তার পরিবারের ক্ষতি সাধন করতে চায়। তিনি ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এবং তাদের এই নিরীহ পরিবারের পাশে দাড়াঁনোর আহবান জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open