বিয়ানীবাজারে গর্ভধারীনি মাকে হত্যা করলো পাষন্ড পুত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা::     সিলেটের বিয়ানীবাজারের চারখাইয়ে ছয়মুন বিবি (৫৫) নামে এক নারীকে গলা কেটে হত্যা করেছে তার প্রবাস ফেরত ছেলে। ঘটনার পর পালিয়ে যাওয়ার সময় ছুরিসহ অভিযুক্ত কামাল হোসেনকে (২৮) আটকে পুলিশে খবর দেন স্থানীয়রা। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের মরদেহ উদ্ধার এবং শিমুলকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে ইউনিয়নের কামারগ্রামে গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ছয়মুন বিবি ওই গ্রামের তাহির আলী সুন্দরের স্ত্রী। ঘাতক কামাল দুই সপ্তাহ পূর্বে আরব আমিরাত থেকে দেশে আসে।

স্থানীয়রা জানান, দেশে ফেরার পর থেকেই পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মার সাথে তার ঝগড়া হতো কামালের। বুধবার বিকেলে ঝগড়ার একপর্যায়ে সে মাকে মারতে উদ্যত হয়। এসময় ছয়মুন বিবি দৌড়ে ঘর থেকে বের হয়ে গেলে কামাল তাকে ঝাঁপটে ধরে ছুরি দিয়ে গলায় আঘাত করে। এসময় প্রচন্ড রক্তক্ষরণে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার সময় মায়ের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে ঘাতক কামাল স্থানীয়দের উপরও আক্রমণের চেষ্টা চালায়। পরে সে নিজের ঘরে ঢুকে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দিয়ে ঘরের অভ্যন্তরে বাসের ছাঁদের উপর উঠে পড়ে। স্থানীয় ঘটনার খবর বিয়ানীবাজার থানাকে অবহিত করলে চাঁরখাই ফাঁড়ির পুলিশ গিয়ে ঘন্টাখানিক চেষ্টা চালিয়ে ঘাতক ছেলে কামালকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিসহ আটক করে।

চারখাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন জানান, ঘাতক পুত্র কামাল হোসেন মানসিক রোগী। প্রায় ১৫ দিন পূর্বে সে সৌদি আরব থেকে দেশে আসে।

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজালাল মুন্সী জানান, খবর পেয়ে বিয়ানীবাজার থানা ও চারখাই পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘন্টাখানিক চেষ্টা চালিয়ে ঘাতক ছেলেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিসহ আটক করেছে এবং নিহত ছয়মুন বিবির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পারিবারিক বিরোধের কারণে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

Sharing is caring!

Loading...
Open