শাল্লায় ভূয়া সার্টিফিকেট দিয়ে স্কুলে নিয়োগের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি::                 সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার গোবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভূয়া সার্টিফিকেটের মাধ্যমে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরীতে চাকুরী দেয়ার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

দপ্তরী নিয়োগের পরীক্ষার্থী ফলাফলের দ্বিতীয় স্থান অধিকারী পলাশ রায় মঙ্গলবার দুপুরে সুনামগঞ্জের পৌরবিপনীতে সংবাদ সম্মেলন এমন অভিযোগ করেন। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পলাশ রায়ের পক্ষে পান্ডব রায়।

লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, গত ৩০শে ডিসেম্বর শাল্লা উপজেলার ৬টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দপ্তরী নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এই পরীক্ষায় গোবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ম স্থান অধিকার করেছে গোবিন্দপুর গ্রামের হরিভূষন দাসের ছেলে সিন্ধু কুমার দাস। পরে সিন্ধু কুমার দাসের সার্টিফিকেটগুলো যাচাই-বাছাই করে দেখা যায় সবগুলো ভুয়া। দপ্তরী নিয়োগের আবেদনের সময় সিন্ধু দাস নেত্রকোনা জেলার খালিয়াজুড়ি উপজেলার বাঘাটিয়া উচ্চ বিদ্যালয় সার্টিফিকেট দিয়ে আবেদন করেছেন। এই সার্টিফিকেটগুলোর বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের সাথে যোগাযোগ করা হলে প্রধান শিক্ষক লিখিত দিয়ে জানিয়েছেন সিন্ধু কুমার দাস নামে কোনো ছাত্র বাঘাটিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করেনি। আর এই বিদ্যালয় থেকে সিন্ধুকে কোনো সার্টিফিকেট দেয়া হয়নি।

তবে এই বিষয়টাকে ধামাচাপা দেয়ার জন্য উপজেলা সহকারি শিক্ষা কর্মকর্তা দীন মোহাম্মদ কয়েকজন ব্যাক্তির যোগসাজশে নানা টালবাহানা করছেন।

স্থানীয় এমপি, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা বরাবরে গত ৩১শে ডিসেম্বর লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়। লিখিত অভিযোগ দেওয়ার এক মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো কোন তদন্ত করা হয়নি। অবিলম্বে বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংবাদ সম্মেলনে জোর দাবী জানান।

Sharing is caring!

Loading...
Open