প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে চাইলে জবাব পাবেন- গয়েশ্বর

সুরমা টাইমস ডেস্ক::        আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রতি শেখ হাসিনা যদি তার প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে চান তাহলে তার জবাব তিনি পাবেন।

তিনি বলেন, সরকারকে জবাব দিতে গিয়ে হয়তো আমাদের সম্পত্তি হারানোর ভয় থাকতে পারে এবং জেলখানায় যাওয়ার ভয় থাকতে পারে। কিন্তু কিছু লোক কিছু দিন ভয় পান, সব লোক সবসময় ভয় পান না। সুতরাং ভয় দেখিয়ে কোনো লাভ হয় না।

আজ শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভা ও স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন। আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা নাছির উদ্দিন হাজারীর সভাপতিত্বে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আরাফাত রহমান কোকো’র ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এ সভায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি নিয়ে যেটা আমরা আশঙ্কা করছি, নীতিবাচক কোনো সিদ্ধান্ত সরকার কর্তৃক আদিষ্ট হয়ে যদি আদালত থেকে প্রকাশ পায়, তাহলে গণতন্ত্রবিহীন বর্তমান সরকারের পতনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হবে।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, কোনো ঘটনা কারো জন্য বসে থাকে না। সময়ই বলে দেয় কে নেতৃত্ব দেবে এবং কারা রাজপথে থাকবে। আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু করবো। এই ঘোষণা দেই বা না দেই, কোনো কিছু ঘটবে না। এমন নিশ্চয়তা আমরা দিতে পারি না।

রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের বিষয়ে বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, রাষ্ট্রপতি নির্বাচন একটি গুরুত্বপূর্ণ পদ। কিন্তু এই নির্বাচন নিয়ে জনগণের কোনো আগ্রহ নেই। রাষ্ট্রপতি দেশের প্রতীক, তিনি সম্মানিত এবং সকলের ঊর্ধ্বে। আবার কোনো ক্ষমতাই নাই। রাষ্ট্রপতি হিসেবে সংকটকালে দুর্যোগ মোকাবেলা করার ক্ষেত্রে কোনো সুযোগ তার (রাষ্ট্রপতি) হাতে নাই। সে কারণে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে মানুষের মধ্যে কোনো আলোচনা আছে বলে আমার মনে হয় না।

জেলের ভয় দেখিয়ে লাভ কী-সরকারের কাছে এমন প্রশ্ন করে বিএনপির এই স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, আমরা জেলখানাতেই আছি। এই বৃহৎ কারাগারের একজন খালেদা জিয়া, আর আমরা সবাই তার জেল পার্টনার। সুতরাং নতুন করে, ছোট করে জেলের ভয় দেখিয়ে গণতন্ত্রকে চাপা দেবেন চিরদিনের জন্য, এ জন্য বাংলাদেশের মানুষ স্বাধীনতার যুদ্ধ করে নাই।

বিএনপির নির্বাচনে যাওয়ার বিষয়ে তিনি বলে, আমরা তো নির্বাচনে যাবো। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নাই। তবে নির্বাচন হতে হবে, নির্দলীয় নিরপেক্ষ একটি সরকারের অধীনে এবং যে নির্বাচনে জনগণ ভোট দিতে পারবে। সেই নির্বাচনে যাওয়ার জন্য এবং করার জন্য বিএনপি সদা প্রস্তুত।

Sharing is caring!

Loading...
Open