কানাইঘাটে ০৩ সন্তানের জননীর লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিনিধি::   সিলেটের কানাইঘাটে তিন সন্তানের জননী বিধবা কুলছুমা বেগম (৪৫) নামের এক মহিলার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে গণধর্ষণের পর ওই মহিলাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে এলাকাবাসী।

গত মঙ্গলবার (২৩শে জানুয়ারি) এ মর্মান্তি ঘটানাটি ঘটে। নিহত কুলছুমা বেগম উপজেলার দিঘীরপাড় পূর্ব ইউপির ধনমাইর মাটি গ্রামের মৃত আলা উদ্দিনের স্ত্রী।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর কুলছুমা বেগম তার দুই কন্যা সকিনা বেগম (২২) ও আমিনা বেগম (১৮)-কে বাড়ীতে রেখে গ্রামের একটি সমিতির সভায় যাওয়ার কথা বলে ঘর থেকে বের হন। এরপর কুলছুমা বেগম রাতে বাড়ীতে ফিরেনি।

গতকাল বুধবার (২৪শে জানুয়ারি) সকাল ১০টায় সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের ভবানীগঞ্জ খালের পাশে সীম বাগানের নিচে পথচারীরা এক মহিলার লাশ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজলকে অবগত করেন। পরে কুলছুমা বেগমের স্বজনরা খবর পেয়ে এসে তার লাশ সনাক্ত করেন।

বিষয়টি তাৎক্ষণিক ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন কাজল কানাইঘাট থানা পুলিশকে খবর দিলে থানার এস.আই হুমায়ুন কবির নিহতের লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়না তদন্তের জন্য সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

স্থানীয় এলাকাবাসীর ধারনা কুলছুমা বেগম বাড়ী থেকে বের হওয়ার পর হয়তোবা এলাকার খারাপ প্রকৃতির দুর্বৃত্ত চক্র তাকে তুলে নিয়ে গণধর্ষণ করে হত্যা করতে পারে। প্রাথমিক লাশের সুরতহাল রিপোর্টে সে ধরনের আলামত পাওয়া গেছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open