বিশ্বনাথে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাস্তা কর্তনের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সিলেটের বিশ্বনাথে থানা পুলিশের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক রাস্তা কর্তনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল শনিবার (২০শে জানুয়ারি) সকালে উপজেলার দশঘর ইউনিয়নের চান্দভরাং গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

জানা গেছে, চান্দভরাং গ্রামে একটি ফুটবল মাঠ রয়েছে। উক্ত মাঠের পার্শ্ব দিয়ে একটি রাস্তা রয়েছে। রাস্তাটি গ্রামের একটি পক্ষ নিজেদের ব্যক্তি মালিকানাধীন দাবি করে আসছেন। অপর একটি পক্ষ উক্ত রাস্তাটি সরকারী খেলার মাঠ ছিল দাবি করে তা দখলের চেষ্ঠা করে আসছিলেন। এনিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলে আসছে। মাঠের পার্শ্ববর্তি এই রাস্তা দিয়ে চান্দভারাং গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী খলিল রহমানের বাড়ি সহ গ্রামের বেশ কয়েকটি বাড়ির লোকজন চলাচল করেন।

সম্প্রতি প্রতিপক্ষের লোকজন রাস্তা কর্তনের জন্য উদ্যোগের প্রস্তুতি নিচ্ছেন এমন সংবাদ পেয়ে গত শুক্রবার (১৯শে জানুয়ারী) রাতে চান্দভরাং গ্রামের মৃত হোসেন আলীর পুত্র যুক্তরাজ্য প্রবাসী খলিল রহমান বাদি হয়ে একই গ্রামের মৃত সোয়াব উল্লাহর পুত্র আব্দুর রহমান, একই গ্রামের মরম আলী উরফে মর্তুজ আলী ও মৃত রশিক উল্লাহর পুত্র খালিছ মিয়াসহ ৩৫/৪০ জনকে অজ্ঞাতনামা বিবাদী করে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগটি সাধারণ ডায়েরী করা হয় (ডায়েরী নং- ৯৩৩/১৮)।

এরপর গতকাল শনিবার সকাল ৯টায় বিরোধপূর্ণ ভূমিতে ১৫৪ ধারা জারি করে উভয় পক্ষের কাছে নোটিশ পৌছে দেন বিশ্বনাথ থানার এসআই জহিরুল ইসলাম। নোটিশে উভয় পক্ষকে স্ব স্ব অবস্থানে থেকে শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে ও বিরোধপূর্ণ ভূমিতে কোন প্রকার পরিবর্তন, পরিবর্ধন, সংস্কার বা নির্মাণকাজ না করতে এবং পক্ষদ্বয়কে নিজ নিজ দালিলিক কাগজপত্রসহ বিকেল ২টায় থানায় উপস্থিত হতে নির্দেশ প্রদান করা হয়। কিন্ত ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান কালেই সকাল ১০টায় আব্দুর রহমান পক্ষের লোকজন বিরোধপূর্ণ রাস্তাটি কর্তন শুরু করেন। একর্পায়ে পুলিশের বাঁধায় রাস্তা কর্তন কারিরা চলে যায়।

খলিল রহমান রাস্তাটি তাদের ব্যক্তি মালিকানাধীন দাবি করে বলেন, এটি আমাদের গ্রামের কয়েকটি পরিবারের নিজস্ব রাস্তা। একটি পক্ষ খেলার মাঠ দখলের নামে আমার রাস্তাটি দখলের অপচেষ্টা করে আসছে। আমরা শান্তিপ্রিয় মানুষ হিসেবে আইনের আশ্রয় নিয়েছি। কিন্ত প্রশাসনের নির্দেশনা অমান্য করে গামের আব্দুর রহমান, মরম আলী, ময়নুল হক, হুসিয়ার আলী ও কামরুজ্জামান সেবুলের নেতৃত্বে প্রায় ২শতাধিক লোক অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে শনিবার সকালে জোরপূর্বক আমাদের বাড়ির রাস্তার মাটি কর্তন করে সমতল করার চেষ্টা করে। এতে আমাদের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

এব্যাপারে চান্দভরাং গ্রামের আব্দুর রহমানের ভাতিজা কামরুজ্জামান সেবুল বলেন, খলিল রহমানের সাথে আমাদের যে বিরোধটি ছিলো তা বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্ততায় গত এগ্রিল মাসে সমাধান হয়েছে। মুরব্বিরদের সিদ্ধান্তের ভিত্তিতেই আমরা বিরোধপূর্ণ রাস্তাটি সড়িয়ে ফেলতে শনিবার সকালে গ্রামবাসী একত্রিত হয়ে রাস্তাটি কর্তন শুরু করি। তখন পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়ে আমাদের কাজ বন্ধ করার নির্দেশ দিলে আমরা বাড়িতে চলে যাই। পুলিশের নিশেধাজ্ঞা অমান্য ও অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে রাস্তা কর্তনের যে অভিযোগ করা হয়েচে তা সঠিক নয়।

বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শামসুদ্দোহা পিপিএম বলেন, শান্তি শৃংখলা বজায় রাখতে উভয় পক্ষকে নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্ত তা অমান্য করে একটি পক্ষ রাস্তার মাটি কর্তন শুরু করলে তাদেরকে সেখান থেকে সড়িয়ে দেওয়া হয়। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Sharing is caring!

Loading...
Open