সুনামগঞ্জে ২ কিশোর অপহরণ, মুক্তিপণ দাবিকারী দু’জন সিলেটে গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিনিধি:: সুনামগঞ্জে দেলোয়ার হোসেন (১২) ও রবিউল ইসলাম (১৪) নামের প্রবাসী পরিবারের দু’কিশোর অপহৃত হয়েছে। দেলোয়ার সদর উপজেলার কাঠইর ইউনিয়নের শাখাইতি গ্রামের প্রবাসী ইকবাল হোসেনের ছেলে ও রবিউল একই গ্রামের প্রবাসী রফিকুল ইসলামের ছেলে।

এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। থানা পুলিশ অপহরণের ঘটনার সাথে জড়িত ও মুক্তিপণ দাবিকারী দু’জনকে সিলেট থেকে গ্রেফতার করলেও বুধবার রাত পর্যন্ত অপহৃত দু’কিশোরকে উদ্ধার করতে পারেনি।

অপহৃত দু’কিশোরের অভিভাবক সদর উপজেলার শাখাইতি গ্রামের জিয়াউল ইসলাম থানায় দেয়া এজাহারে উল্লেখ্য করেন, চলতি মাসের গত ১২ই জানুয়ারি শুক্রবার দুপুর অনুমান ১২ ঘটিকার সময় সম্পর্কে নাতি দেলোয়ার হোসেন এবং ভাতিজা রবিউল ইসলাম বাড়ির পাশে মাঠে খেলা করছিল। পরবর্তীতে তাদেরকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরদিন তিনি সদর মডেল থানায় নিখোঁজের ব্যাপারে সাধারণ ডায়রি করেন। সাধারণ ডায়রি করার পর ওই রাতে মোবাইল ফোনে ও বিভিন্ন মাধ্যমে সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থানার বড়ইকান্দি গ্রামের মৃত সুনু মিয়ার ছেলে মইনুল মিয়া জানায় তার নিকট নিখোঁজ হওয়া শিশু দেলোয়ার হোসেন ও রবিউল ইসলাম রয়েছে। দুই শিশুকে ফেরত পেতে হলে ১০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে মইনুল। দুই শিশু সিলেটের কদমতলী বাসটার্মিনালে আছে। শিশুদের পেতে হলে সেখানে টাকা নিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে উপস্থিত হতে হবে। পরে সেখানে উপস্থিত হলে মইনুলের সাথে মুক্তিপণের টাকা নিতে আসা সিলেটের জালালাবাদ থানার আখালিয়া নোয়াপাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে জিয়াউর রহমানকেও দেখতে পান পরিবারের লোকজন।

এ সময় পরিবারের লোকজন ২ হাজার টাকা দিয়ে কিশোরদের ফেরত দেয়ার পর বাকি ৮ হাজার টাকা পরিশোধ করার কথা বললে মইনুল ও জিয়াউর ঝগড়া বাঁধিয়ে দেয় কিশোরদের পরিবারের লোকজনের সাথে। এক পর্যায়ে মইনুল ও জিয়াউর শিশুদের নিয়ে আসার অজুহাত দেখিয়ে পালিয়ে যাবার কৌশল করলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশ ও সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশ দু’জনকেই গ্রেফতার করে সন্ধায় সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় নিয়ে আসে।

এ ঘটনার পর গত মঙ্গলবার রাতে জিয়াউল ইসলাম বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় অপহরণের অভিযোগ এনে একটি মামলা দায়ের করেন।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো. আবদুল্লাহ আল মামুন বুধবার রাতে জানান, গ্রেফতারকৃত দু’জনকেই গতকাল বুধবার আদালতে সোর্পদ করে রিমান্ড চাওয়া হয়েছে, অপহৃত কিশোরদের উদ্ধারে পুলিশের কয়েকটি টিম মাঠে তৎপর রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, গ্রেফতারকৃত মইনুল পেশাদার অপহরণকারী তার বিরুদ্ধে সিলেটের শাহপরান থানাতেও অপহরণ ও মুক্তিপণ দাবির মামলা রয়েছে।

Sharing is caring!

Loading...
Open